মিষ্টি কুমড়ো থেকে পেতে পারেন যে যে উপকারী গুন

মিষ্টি কুমড়ো থেকে পেতে পারেন যে যে উপকারী গুন

কুমড়োর ভাজা থেকে শুরু করে তরকারি এমন কোনও জিনিস নেই যা আমরা এই সবজি দিয়ে বানাই না। মিষ্টি স্বাদের এই সবজিটি তাই সকলেরই অত্যন্ত প্রিয়। মিষ্টি কুমড়োর মতো সুস্বাদু সবজি খুব কমই রয়েছে। হালকা মিষ্টি স্বাদের এই সবজিটি পাওয়া যায় সারা বছর জুড়ে। খাদ্যতালিকায় নিয়মিত মিষ্টি কুমড়োর উপস্থিতি আপনাকে রাখতে পারে অনেক অসুখ-বিসুখ থেকে দূরে। জেনে নিন মিষ্টি কুমড়োর কিছু উপকারি গুন—

চোখের উপকারিতা: মিষ্টি কুমড়োয় রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ, যা চোখে ছানি পড়া ও দৃষ্টিশক্তি হ্রাসের ঝুঁকি অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। খাদ্য তালিকায় নিয়মিত এ সবজিটি রাখার ফলে আপনার দৃষ্টিশক্তি আরও প্রখর হবে 

ওজন কমাতে সহায়ক: মিষ্টি কুমড়োতে ক্যালরির পরিমাণ অনেক কম। কিন্তু এতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার ও পটাশিয়াম আছে। কুমড়োর ফাইবার দেহের ক্ষিদে নিয়ন্ত্রণ করে। পটাশিয়াম দেহ থেকে অপ্রয়োজনীয় জল ও লবণ বের করে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

বয়সের ছাপ প্রতিরোধ করে: মিষ্টি কুমড়োতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে জিংক ও আলফা হাইড্রোক্সাইড। জিংক ইমিউনিটি সিস্টেম ভালো রাখে ও অস্টিওপোরোসিস প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। এছাড়া বয়সের ছাপ প্রতিরোধ করতেও মিষ্টি কুমড়ো সাহায্য করে।

গর্ভবতী নারীদের জন্য: মিষ্টি কুমড়ো ও এর বীজ গর্ভবতী মায়েরা তাদের অনাগত সন্তানের সুস্বাস্থ্যর জন্য নির্দ্বিধায় খেতে পারেন। মিষ্টি কুমড়ো গর্ভবতী মায়েদের রক্তস্বল্পতা রোধ করে অকাল প্রসবের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে: মিষ্টি কুমড়োয় প্রচুর পরিমাণে আঁশ থাকায় তা সহজেই হজম করতে সাহায্য করে। হজমশক্তি বৃদ্ধি ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে মিষ্টি কুমড়োর জুড়ি নেই।

ক্যান্সার দূরে রাখে: অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ মিষ্টি কুমড়ো ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। সেই জন্য ক্যান্সার প্রতিরোধে কুমড়ো খুবই উপকারী। 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা: কুমড়োর বিশেষ উপাদান বিটা- ক্যারোটিন মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ভিটামিন-এ, সি, ই, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম এবং আরও অনেক উপাদান আছে যা টিস্যুকে রক্ষা করে থাকে।