অনুপ্রবেশের অভিযোগে ১৮ জন বাংলাদেশি সহ দালালকে আটক করল বিএসএফ

অনুপ্রবেশের অভিযোগে  ১৮ জন বাংলাদেশি  সহ দালালকে আটক করল বিএসএফ

ফের অবৈধভাবে সীমান্ত পার করার চেষ্টা। কেউ আসছিলেন কাজের খোঁজে তো কেউ আবার পরিজনের সঙ্গে দেখা করতে। তবে সেই প্রবেশের চেষ্টা ছিল সম্পূর্ণ অবৈধভাবে। খবর পেয়ে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের অভিযোগে একসঙ্গে ১৮ জন বাংলাদেশি (Bangladesh) -সহ দালালকে আটক করল সীমান্তরক্ষা বাহিনীর (বিএসএফ) জওয়ানরা। বুধবার ধৃতদের হিঙ্গলগঞ্জ থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে বিএসএফের তরফে।

বৃহস্পতিবার ধৃতদের বসিরহাট আদালতে তোলা হবে। সীমান্তরক্ষী বাহিনী সূত্রে জানা গিয়েছে, গোপন সূত্রে অনুপ্রবেশের খবর ছিল বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) এর কাছে। সেই মতো সীমান্ত এলাকায় কঠোর নজরদারিও চলছিল। তারই ফল মিলল হাতেনাতে। বুধবার ভোররাতে দালাল-সহ ১৮ জন বাংলাদেশিকে পাকড়াও করে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর ১১৮ ব্যাটেলিয়ন জওয়ানরা।

তাদের জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়।  প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গিয়েছে, এদের মধ্যে কয়েকজন বহু বছর ধরে ভারতে কর্মরত। তাঁদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে বাংলাদেশে গিয়েছিলেন। ফেরার সময় বাংলাদেশ থেকে অবৈধভাবে ভারতে ঢোকে। ধৃতদের মধ্যে কয়েক জন বাংলাদেশ থেকে প্রথমবার ভারতে আসছিলেন। তাদের দাবি, কাজের সন্ধানেই এদেশে আসছিলেন তাঁরা।

পরবর্তী আইনি প্রক্রিয়ার জন্য ধৃতদের হিঙ্গলগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। ছবি: প্রতীকী সাম্প্রতিক সময় রাজ্যে সংঘটিত হওয়া একাধিক অপরাধের পিছনে বাংলাদেশ থেকে অনুপ্রবেশকারীদের থাকতে দেখা গিয়েছে। কখনও তারা জাল পরিচয়পত্র তৈরির ব্যবসা ফেঁদেছে তো কখনও নাশকতামূলক ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থেকেছে।

এর পর স্বাভাবিককভাবেই সীমান্তে নজরদারি বেড়েছে। আর তাই সুফল মিলল হাতনাতে। সম্প্রতি বিএসএফের গোয়েন্দাদের হাতে আলাদাভাবে ধরা পড়ে তিনজন। তাদের জেরা করে বিএসএফের গোয়েন্দারা জানতে পারেন যে, তিনজনই আসলে বাংলাদেশি। জেরার মুখে দু'জন জানায়, তামিলনাড়ুর দু'টি কাপড়ের মিলে ভুয়ো পরিচয় দিয়ে কাজ করছেন প্রায় দু'শো জন বাংলাদেশি। অন্য ব্যক্তি জানিয়েছে, সে কেরলের অন্তত ৬০ জন বাংলাদেশিকে চেনে, যারা কাজ করছে সেখানকার কারখানায়। এই তথ্য জানার পর নড়েচড়ে বসেকেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা।