মহালয়ার সকালে খুলবে না দক্ষিণেশ্বর মন্দির, তর্পন বন্ধে জারি নিষেধাজ্ঞা

মহালয়ার সকালে খুলবে না দক্ষিণেশ্বর মন্দির, তর্পন বন্ধে জারি নিষেধাজ্ঞা

আজবাংলা     মহালয়ার সকালে বন্ধ থাকবে দক্ষিণেশ্বর মন্দিরও। প্রতিবারের মতো তর্পণ সেরে দর্শনার্থীরা মন্দিরে দেবীমূর্তির দর্শন পাবেন না।মহালয়ার ভোরে সামাজিক দূরত্ব পালন আদৌ সম্ভব কি না, তা নিয়ে সংশয় থাকায় আগেই তর্পণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল দক্ষিণেশ্বর মন্দির কমিটি। এবার মন্দিরের তরফে জানানো হল, মহালয়ার ভোরে সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে দক্ষিণেশ্বর।

যদিও মন্দির খুলবে। তবে দেরি করে। মহালয়ার দিন মন্দির খুলবে দুপুর তিনটেয়। মন্দির খোলা থাকবে সন্ধে সাড়ে আটটা পর্যন্ত।উল্লেখ্য, চলতি মাস থেকে দক্ষিণেশ্বর মন্দির খোলার সময়ও পরিবর্তন হচ্ছে। জানা গিয়েছে, ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে সকাল সাড়ে ছ’টায় খুলবে মন্দির। বন্ধ হবে সাড়ে বারোটায়। ওদিকে বিকেল তিনটেয় খুলবে মন্দির। বন্ধ করা হবে সাড়ে সাতটায়।

তবে মন্দিরে প্রবেশের ক্ষেত্রে প্রত্যেকের মাস্ক-স্যানিটাইজার ব্যবহার আবশ্যক।দক্ষিণেশ্বর খোলার পরেই যে ভাবে ভীড় বাড়ছে তাই ভয় দেখাচ্ছে মন্দির কর্তৃপক্ষকে। বিশেষত মহালয়ার দিনে প্রতিবছরের মতো ভীড় হলে সংক্রমণ ছড়াতে পারে, মনে করছে মন্দির কর্তৃপক্ষ। সেই কারণেই ঘাটে নামা বা মন্দিরে ঢোকা যাবে না সেদিন সকালে।নিয়ম মেনে ১০ জুন খোলে দক্ষিণেশ্বর।

১৩ জুন থেকে দর্শনার্থীরা প্রবেশের অনুমতি পায়। কিন্তু ভক্তরা পুজোয় ফুল দিতে পারতেন না। সিঁদুর, চরনামৃতও দেওয়া হত না দর্শনার্থীদের। বছরের অন্য সময় এভাবে নিয়ম মেনে চলা সম্ভব হলেও মহালয়ার দিন ভিড় এড়ানো সম্ভব হবে না বলেই মনে করছিল মন্দির কর্তৃপক্ষ।

সেই কারণেই এবছর মন্দিরের ঘাটগুলিতে তর্পণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।পাশাপাশি, বারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের তরফে মন্দির কর্তৃপক্ষকে মহালয়ার দিন দর্শনার্থীদের জন্য মন্দির বন্ধ রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। সেই প্রস্তাবেই সম্মতি দিল মন্দির কমিটি। জানানো হল ১৭ সেপ্টেম্বর সকালে বন্ধই থাকবে মন্দির। তবে ১৮ তারিখ সকাল সাড়ে ৬ টায় খুলে যাবে মন্দির।