নরেন্দ্র মোদীর সফরে আপ্লুত বাংলাদেশের হিন্দুরা

নরেন্দ্র মোদীর সফরে আপ্লুত বাংলাদেশের হিন্দুরা

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটগ্রহণ শুরু হওয়ার একদিন আগে শুক্রবার বাংলাদেশ (Bangladesh) সফরে গিয়ে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। তাঁর সফর ঘিরে সাজো সাজো রব ওপার বাংলাজুড়েও। আগামিকাল, ঠিক যেদিন এ রাজ্যে ভোটগ্রহণ শুরু হবে, সেই সময় সাতক্ষীরার যশোরেশ্বরী কালীমন্দিরে (Kali Temple) দর্শন করতে যাবেন তিনি। আর প্রধানমন্ত্রীর সফর ঘিরে নব কলবরে সেজে উঠছে সেই মন্দির।

জরাজীর্ণ দশা ঘুচিয়ে সেই মন্দিরকে নতুন রূপ দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। সূত্রের খবর, শনিবার সকালে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারে করে সাতক্ষীরার সেই যশোরেশ্বরী কালীমন্দিরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেই মন্দিরে পুজো দিয়ে সেখান থেকে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন।

টুঙ্গিপাড়া থেকে প্রধানমন্ত্রী যাবেন গোপালগঞ্জের ওড়াকান্দিতে। সেখানে মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষের সঙ্গে দেখা করে ভাব বিনিময় সারবেন। এরপর মতুয়াদের প্রাণপুরুষ হরিচাঁদ ঠাকুরের মন্দিরে তিনি পুজো দেবেন।  করোনা মহামারির পর এই প্রথমবার বিদেশ সফরে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর এই সফরকে কেন্দ্র করেই যশোরেশ্বরী কালীমন্দির নতুন কলেবরে সাজানোর ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ সরকার।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, করুণ দশা থেকে নতুন ভাবে সেজে উঠেছে এই মন্দির। এতদিন পর্যন্ত কিছুটা ব্রাত্য করেই রাখা হয়েছিল এই মন্দিরকে। বাংলাদেশ সরকারের এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে বাংলাদেশ হিন্দু কাউন্সিল। মন্দির নতুন রূপে সেজে ওঠার পুরো কৃতিত্বই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে দিয়েছেন বাংলাদেশের হিন্দুরা।

এলাকাবাসীদের মতে, এই মন্দির তৈরি করেছিলেন আনারি নামে একজন ব্রাহ্মণ। তবে আসল তারিখ সম্পর্কে কোনও ধারণা পাওয়া যায়নি। প্রতি বছর কালী পুজোর এই মন্দিরে মানুষের ঢল নামে। মন্দিরের উঠোনে আয়োজিত হয় মেলা। একাত্তরের পর এই মন্দির কাঠামো ধ্বংস হয়ে গিয়েছে, এখন স্রেফ স্তম্ভগুলি রয়েছে।