দোহায় তালিবানের সঙ্গে বৈঠক ভারতীয় রাষ্ট্রদূতের

দোহায় তালিবানের সঙ্গে বৈঠক ভারতীয় রাষ্ট্রদূতের

আফগানিস্তান (Afghanistan) থেকে মার্কিন সেনাবাহিনীর শেষ ব্যাচ চলে গিয়েছে। দীর্ঘ যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি হয়েছে মঙ্গলবারই। আর তারপরেই তালিবানের (Taliban) সঙ্গে কাতারে বৈঠকে বসল ভারত (India)।মঙ্গলবার কাতারের (Qatar) রাজধানী দোহায় (Doha) তালিবানের রাজনৈতিক শাখার মুখপাত্রের সঙ্গে বৈঠক করলেন কাতারে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত (Indian envoy) দীপক মিত্তল।

বিদেশমন্ত্রকের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই বৈঠকের বিষয়ে জানানো হয়েছে। এদিন দোহার ভারতীয় দূতাবাসে তালিবান প্রতিনিধি শের মহম্মদ আব্বাসের সঙ্গে সাক্ষাত্‍ করেন ভারতীয় রাষ্ট্রদূত। আফগানিস্তানের মাটিকে জঙ্গি ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করা নিয়ে বৈঠকে উদ্বেগ প্রকাশ করেন দীপক। পাশাপাশি আফগানিস্তানে আটকে পড়া ভারতীয়দের নিরাপত্তা ও তাঁদের ভারতে ফেরানো নিয়েও কথা হয়েছে।

তালিবানের তরফে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে সমস্ত বিষয়কেই ইতিবাচক ভাবে সমাধান করার। বিদেশ মন্ত্রকের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, 'আফগানিস্তানে আটকে পড়া ভারতীদের নিরাপত্তা ও তাঁদের দেশে ফেরানো নিয়ে আলোচনা হয়েছে বৈঠকে। পাশাপাশি আফগান নাগরিক, বিশেষত সংখ্যালঘুদের ভারতে আসা নিয়েও কথা হয়েছে। পাশাপাশি আফগানিস্তানের মাটিকে যেন ভারত-বিরোধী কার্যকলাপের জন্য ব্যবহার না করা হয়, সেব্যাপারেও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন দীপক মিত্তল।'

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান দখল করে তালিবান। নতুন করে শুরু হয় অন্ধকার যুগের। এরপর থেকেই সেদেশের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ বাড়ে বাকি বিশ্বের। সেখানে আটকে থাকা ভারতীয়দের দেশে ফেরাতে উদ্যোগী হয় ভারত। তবে তালিবানের বিষয়ে প্রথম থেকেই 'ধীরে চলো নীতি' নিয়ে এগোচ্ছিল। অবশেষে মঙ্গলবার প্রথমবার তালিবানের সঙ্গে সামনাসামনি কথা হল ভারতের।

এদিকে সোমবারই পুরোপুরি আফগানিস্তান ছাড়ে মার্কিন সেনা। কিন্তু এরপরই তাদের সেনার একাংশকে পাকিস্তানে পৌঁছতে দেখা গিয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে, এবার কি পাকিস্তানে বসেই তালিবানের উপরে নজরদারি চালাবে ওয়াশিংটন? যদিও পাকিস্তানের তরফে এমন দাবি উড়িয়ে জানানো হয়েছে, মার্কিন সেনাকে সাময়িক ভাবে এখানে থাকতে দেওয়া হয়েছে।