গাজা উপত্যকায় ফের বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী

গাজা উপত্যকায় ফের বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী

 ফের গাজায় বিমান হামলা চালাল ইজরায়েল (Israel)। ফলে ওই অঞ্চলে ফের যুদ্ধের প্রবল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ইসরায়েলের দাবি, ফিলিস্তিন থেকে আগুন বেলুন ছোড়ার পাল্টা জবাবে এ হামলা চালানো হয়েছে। তবে ইসরায়েলি এ হামলায় এখন পর্যন্ত হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি। প্রায় এক মাস আগে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হওয়ার পর গাজায় এটাই প্রথম ইসরায়েলি বিমান হামলা। বুধবার গাজায় প্যালেস্তিনীয় জঙ্গি সংগঠন হামাসের ঘাঁটিতে বোমাবর্ষণ করে ইজরায়েলের যুদ্ধবিমান।

ওই হামলায় জেহাদি সংগঠনটির একাধিক ঘাঁটি গুঁড়িয়ে গিয়েছে। জানা গিয়েছে, এদিন দক্ষিণ ইজারায়েলে বিস্ফোরক বোঝাই বেলুন দিয়ে হামলা চালায় জঙ্গিরা। গাজা থেকে উড়ে আসা ওই বেলুন থেকে ইজরায়েলর খেতে আগুন ধরে যায়। তারই জবাবে এই হামলা। এক বিবৃতি জারি করে ইজরায়েলের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, যে কোনও ধরনের পরিস্থিতির সঙ্গে মোকাবিলা করতে প্রস্তুত তারা। প্রয়োজনে গাজায় জঙ্গিদের ধ্বংস করতে ফের যুদ্ধ শুরু করবে ফৌজ। সম্প্রতি দেশটিতে নতুন সরকার গঠন করেছে ডানপন্থী জাতীয়তাবাদী জামিনা পার্টির নাফতালি বেনেট। ফলে সমাপ্ত হলো বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর ১২ বছরের শাসন। জোট গঠনের শর্ত হিসেবে বেনেট ২০২৩ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

এদিকে, সংবাদ সংস্থা এএফপিকে প্যালেস্তিনীয় প্রশাসন জানিয়েছে, খান ইউনুস শহরে হামাসের একটি ঘাঁটিতে হামলা হয়েছে। তাত্‍পর্যপূর্ণ ভাবে, ইজরায়েলে নেতানিয়াহু সরকারের পতনের পর এটাই প্রথম বিমান হামলা। দু'বছরে চারবার নির্বাচন এবং দীর্ঘ রাজনৈতিক টানাপোড়েন কাটিয়ে বারো বছর পরে সদ্য ইজরায়েলের মসনদে বসেছে নতুন সরকার। বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে হারিয়ে সবে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন নাফতালি বেনেট (Naftali Bennett)।

আর ক্ষমতায় এসেই 'March of the Flags' বা জাতীয়তাবাদী মিছিলের অনুমতি দেন তিনি। মঙ্গলবার পূর্ব জেরুজালেম-সহ প্যালেস্তাইনের অধিকৃত ভূখণ্ডে অনুষ্ঠিত ইহুদি দক্ষিণপন্থীদের ওই মিছিলের পর থেকেই উত্তপ্ত ইজরায়েল। উল্লেখ্য, গত মে মাসে জেরুজালেমের আল আকসা মসজিদে ইহুদি ও মুসলিম সম্প্রদায়ের অনুগামীদের মধ্যে সংঘাত শুরু হয়। তারপর তা ক্রমে ভয়াবহ আকার নেয়। রমজানের নমাজ পড়তে জেরুজালেমের আল আকসা মসজিদে জড়ো হয়েছিলেন হাজার হাজার মুসলমান। সেখান থেকেই সংঘাতের সূত্রপাত। তারপর প্রায় ১১ দিন ধরে হামাস ও ইজরায়েলী সেনাবাহিনীর মধ্যে যুদ্ধ হয়। অবশেষে মিশরের হস্তক্ষেপে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছিল যুযুধান দুই পক্ষ।