মালদায় কুখ্যাত জালনোট পাচারকারী মাথুর শেখকে গ্রেফতার করল এনআইএ

মালদায় কুখ্যাত জালনোট পাচারকারী মাথুর শেখকে গ্রেফতার করল  এনআইএ

মালদহ: মালদহের কুখ্যাত জালনোট পাচারকারীকে গ্রেফতার করল ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি বা এনআইএ (NIA)। নাম মাথুর শেখ ওরফে আলাদু। বাংলাদেশ থেকে জাল নোট এনে তা ভারতবর্ষে চালাত বলে অভিযোগ ৪৫ বছর বয়সী এই যুবকের বিরুদ্ধে। ২০১৯ সাল থেকে তাঁর খোঁজ চালাচ্ছিল এই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। অবশেষে ধরা গিয়েছে তাঁকে। এনআইএ ও বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স বা বিএসএফের যৌথ অভিযানে আলাদুকে গ্রেফতার করা হয়।

শনিবার এনআইএ’র কলকাতার আধিকারিক ও মালদহ সেক্টরের বিএসএফ যৌথ অভিযান চালায় কালিয়াচকের হারুচক গ্রামে। সেখান থেকেই তাঁকে ধরে। ২০১৯ সালে একটি মামলা দায়ের হয়। সেই সময় থেকে এনআইএ আলাদুকে খুঁজছে। সে বছরের সেপ্টেম্বর মাসে মালদহের ডিরেক্টরেট অব রেভিনিউ ইনটেলিজেন্স বা ডিআরআই (DRI) ১.৯৯ লক্ষ টাকার জাল নোট বাজেয়াপ্ত করে।

এর আগে এনআইএ চার অভিযুক্তের নামে চার্জশিট দাখিল করে। সেখানে এই আলাদুরও নাম ছিল। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, বাংলাদেশ থেকে জাল নোট নিয়ে আসতেন ভারতে। এরপর তাঁর চক্রের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতেন এ দেশে। ২০১৯ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর অসীম সরকার নামে এক যুবককে ঝলঝলিয়া স্টেশন রোড থেকে ধরা হয়। তাঁর কাছ থেকে বহু জাল নোট পাওয়া যায়। জেরার মুখে অসীমই আলাদুর নাম বলেন। সেই থেকেই আলাদু এনআইএ-এর নজরে আসে।

জাল নোট পাচারকারীদের দৌরাত্ম্য বেড়েছে বাংলায়। সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে পাচারকারীদের দাপট। সীমান্ত সুরক্ষা বাহিনীর হাতে প্রায়শই ধরাও পড়ে অভিযুক্তরা। সীমান্তের নিরাপত্তার কারণে বিএসএফের এক্তিয়ার বাড়ানোর কথা বলেছে কেন্দ্র। যদিও রাজ্যের বক্তব্য, রাজ্য পুলিশই বিষয়টি সামাল দিতে সমর্থ। এ বিষয়ে বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলেন, “শুধুমাত্র বিএসএফ দিয়ে, শুধুমাত্র রাজ্য পুলিশ দিয়ে বা শুধুমাত্র ভারত সরকারের কোনও প্রতিষ্ঠান নিয়ে এসব বন্ধ করা যাবে না।

এর জন্য রাজনৈতিক সচেতনতা ও ঐক্যমতের প্রয়োজন আছে। এর জন্য মানুষের সচেতনতার প্রয়োজন আছে। বিএসএফকে আরও বেশি সক্রিয় করার প্রয়োজন আছে। ৬০ কিলোমিটার, ৫০ কিলোমিটার, ১৫ কিলোমিটার নিয়ে যে বিতর্ক আমরা দেখলাম পশ্চিমবঙ্গের মতো একটা জায়গায় ২২০০ কিলোমিটারের বেশি যখন অবৈজ্ঞানিক সীমান্ত তখন এ ধরনের ঘটনা প্রতিহত করতে সমস্ত স্তরের মানুষের ঐক্যবদ্ধ হওয়া দরকার। তবে এসব বন্ধ করা যাবে।”