জাপান ভ্রমণে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

জাপান ভ্রমণে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজের নাগরিকদের জাপান ভ্রমণের ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে। টোকিও অলিম্পিক শুরু হতে আর বেশি দেরি নেই। তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অলিম্পিক কর্মকর্তারা বলেছেন, তাঁরা এ ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী যে তাঁদের ক্রীড়াবিদেরা এই গেমসে নিরাপদে অংশ নিতে সক্ষম হবেন। স্থানীয় সময় সোমবার মার্কিন বিদেশ দফতর থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের জাপান ভ্রমণের ব্যাপারে চতুর্থ মাত্রার সতর্কতা জারি করা হয়। এটি মার্কিন নাগরিকদের কোনও দেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সতর্কতা হিসেবে গণ্য হয়ে থাকে।

বর্তমানে বিশ্বের ১৫১টি দেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চতুর্থ মাত্রার সতর্কতা জারি রয়েছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই করোনা মহামারির কারণে এ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এক বছরের বেশি সময় ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে জাপানের যাতায়াত কার্যত বন্ধ রয়েছে। করোনা মহামারি থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ক্রমশ বেরিয়ে আসছে। তবে জাপানের পরিস্থিতি এখনও খুব একটা সুবিধার নয়। জাপানে এখন পর্যন্ত সাত লাখের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন প্রায় ১২ হাজার মানুষ।

রাজধানী টোকিও সহ ইয়োকোহামা, ফুকুশিমা এবং বিভিন্ন জায়গায় অনেক দিন ধরে করোনার সংক্রমণের হার কম ছিল। কিন্তু এখন দেশটিতে নতুন করে করোনা সংক্রমণের ঢেউ দেখা যাচ্ছে। তাছাড়া করোনার টিকাদানের ক্ষেত্রেও জাপান পিছিয়ে আছে। এখন পর্যন্ত জাপানের মাত্র দুই শতাংশ লোক করোনার অন্তত এক ডোজ টিকা গ্রহণ করেছে। স্বাস্থ্যসেবী ও সিরিঞ্জের সংকটের কারণে দেশটিতে টিকাদান কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। জাপানের একটা বড় অংশে জরুরি অবস্থা জারি রয়েছে।

জাপান ইতিমধ্যে বেশির ভাগ ভ্রমণকারীদের সেদেশে প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে। করোনার নতুন ধরণের ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় জাপান কোনও পর্যটক বা ব্যবসায়ী ভ্রমণকারীদের দেশে প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে না। এ নিষেধাজ্ঞার আওতায়  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও আছে। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) বলেছে, জাপানে মার্কিনযুক্তরাষ্ট্রের ভ্রমণকারীদের সব ধরনের ভ্রমণ এড়ানো উচিত। জাপানের বর্তমান যে পরিস্থিতি, তাতে পুরোপুরি টিকা নেওয়া ভ্রমণকারীদের ক্ষেত্রেও করোনার ঝুঁকি থাকতে পারে।