আপনার নামের প্রথম অক্ষর আপনার ব্যক্তিত্বের স্বাক্ষর (প্রথম অংশ)

আপনার নামের প্রথম অক্ষর আপনার ব্যক্তিত্বের স্বাক্ষর (প্রথম অংশ)

আপনার নাম শুধু আপনার পরিচয় বহন করে না। আপনার নাম আপনার সম্বন্ধে আরও অনেক কিছু তথ্য বহন করে চলে। আপনার নামের সংখ্যাকে ভাগ্য সংখ্যা বলে। এখানে আমরা ভাগ্য সংখ্যা নিয়ে আলোচনা করব না। আমরা আলোচনা করব শুধু নামের অদ্যক্ষর বা প্রথম অক্ষর নিয়ে। আপনার নামের ইংরেজি বানানের শুধু প্রথম অক্ষর নিয়ে এই আলোচনা করব।

A-আপনার নামের ইংরেজি বানানের প্রথম অক্ষর A হলে, লোকে আপনাকে দেখে একজন দাম্ভিক ও উদ্ধত প্রকৃতির মানুষ হিসেবে চিনবে। যদিও আপনি তা নন। আপনি আপনার লক্ষ্য জানেন এবং সেই লক্ষ্যে এগিয়ে যান। আপনি একজন বাস্তববাদী মানুষ এবং আপনার চাওয়া পাওয়াও ততটাই বাস্তব। ব্যক্তি হিসেবে আপনি একজন বুদ্ধিজীবী, স্মার্ট ও রসজ্ঞান সম্পন্ন মানুষ।

B-আপনার নামের ইংরেজি বানানের প্রথম অক্ষর B হলে, আপনাকে দেখে মনে হয় আপনি ব্যক্তিগত জীবনে বিশ্বাসী। আপনি নিজেকে একান্ত ভাবে নিজের মতো করে ভাবেন, নিজের মতো করে চলেন, নিজের মতো করেই খাওয়া দাওয়াতে বিশ্বাসী। বিপরীত ভাবে আপনি আবার সামাজিক আদান প্রদানে বিশ্বাসী। উপহার দেওয়া নেওয়াতে আগ্রহী। এগুলিকে আপনি প্রশ্রয়ও দিয়ে থাকেন। আপনি একজন বিশেষ ভাবে স্পর্শকাতর ব্যক্তি, সেই জন্য আপনি চান লোকে যেন আপনার ভাবাবেগকে সম্মান করে। আপনি এমন একজন জীবনসঙ্গিনী চান, যার মধ্যে মায়া, মমতা, স্নেহ ও ভালবাসা আছে।

C- আপনার নামের বানানের প্রথম অক্ষর C হলে, আপনি বিশেষ ভাবে সামাজিক ব্যক্তি। আপনি চান সব সময় অনেকের মধ্যে থাকতে। আপনি যেখানেই থাকুন না কেন, সেখানেই কোনও না কোনও সোসাইটির মধ্যে থাকবেন। সমাজ আপনার হৃদয়। আর তার জন্য আপনি সব কিছু করতে পারেন। পারেন অর্থ দিয়ে সাহায্য করতে বা শ্মশানযাত্রী হতেও। আপনি চান আপনার জীবনসঙ্গিনী যেন খুব সুন্দরী ও আকর্ষণীয় চেহারার হয়। আপনি সেই সব মানুষজন বা বন্ধুবান্ধব চান, যারা আপনার ভূয়ষী প্রশংসা করবে। যদিও আপনি আপনার কামনা বাসনাকে বিশেষ ভাবে সংযত রেখে চলেন।

D-যদি আপনার নামের বানানের প্রথম অক্ষর D হয়, তা হলে আপনি কিছুটা উগ্র ও গোঁয়ার প্রকৃতির ব্যক্তি। এই ভাবনার জন্য হয়ত আপনি অনেকটাই দায়ী, কারণ আপনি যখন কিছু পেতে চান তার জন্য নাছোড়বান্দার মতো আচরণ করেন। তা না হলে আপনি একজন ভীষণ ভদ্রলোক। শুধু তাই নয়, আপনি অন্যের প্রতি বিশেষ যত্নশীল। আপনি যে কোনও সম্পর্কের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও বিশ্বস্ত। আপনি সম্পর্ক ধরে রাখতে জানেন। আপনি কখনও আত্মকেন্দ্রিক ও অস্বাভাবিক ব্যবহারের পক্ষে দাঁড়ান না।আপনি চান মানুষের মধ্যে ভালবাসাপূর্ণ ও যত্নশীল আচরণ।

E-যদি আপনার নামের প্রথম অক্ষর E হয়,তবে আপনি বুদ্ধিজীবী জগতের লোক। আপনি সব সময় বৌদ্ধিক আলোচনা ভালবাসেন। আপনার শ্রেষ্ঠ বন্ধু হচ্ছে বই। আপনি প্রচুর কথা বলতে ভালবাসেন। তবে আপনি একজন ভাল শ্রোতাও। আপনি অন্যের বিতর্ক মূলক আলোচনা মন দিয়ে শোনেন। তখনই সম্পর্ক খারাপ হয় কেউ যদি বাজে ব্যবহার করে।

F-যদি নামের প্রথম অক্ষর F হয়, আপনি একজন সত্যিকারের রোমান্টিক ও আদর্শবাদী মানুষ। আপনি একজন আবেগপ্রবণ, প্রীতিপূর্ণ ও স্নেহশীল মানুষ এবং সেই অর্থে আপনি একজন দায়িত্বশীল ভাল জীবনসঙ্গী বা সঙ্গিনী। একই ভাবে আপনি আপনার জীবনসঙ্গিনী বা সঙ্গীর কাছ থেকে আনুগত্যপূর্ণ ও বিশ্বস্ত ব্যবহার আশা করেন। আপনি দিবাস্বপ্ন দেখে সময় কাটাতে ভালবাসেন।

G-আপনি একজন প্রথম শ্রেণির পারফেকশনিস্ট। আপনি আশা করেন আপনার জীবন সঙ্গী বা সঙ্গিনী সেই রূপ হবে। আপনি চরম ভাবে সদা কর্ম তৎপর। সেই জন্য আপনি সহজে ক্লান্ত হতে চান না। একই ভাবে আপনিও চান আপনি যাদের সঙ্গে মেশেন তারাও যেন আপনার মতো স্মার্ট, নির্ভরযোগ্য ও বিশ্বস্ত হয়।

H-যদি আপনার নামের প্রথম অক্ষর H হয়, আপনি জীবনের সব অবস্থাতেই জীবনকে উপভোগ করে যেতে চান, তা যত তুচ্ছ জিনিসই হোক না কেন। আপনার চারপাশের মানুষ ভাল ভাবে জানে, বিপদের দিনে আপনার কাছে গেলে কোনও না কোনও সাহায্য পাওয়া যাবেই। আপনি যে বিশ্বাসে বড় হয়ে উঠেছেন তার থেকে আপনাকে সরানো বেশ কঠিন। আপনি দিবা স্বপ্ন দেখতে ভালবাসেন। আর যুক্তির চেয়ে আবেগপূর্ণ জীবনই বেশি ভালবাসেন।

I – আপনার নামের ইংরেজি বানানের নামের প্রথম অক্ষর যদি I হয় তবে, আপনি বিলাসবহুল জীবন যাপনে বিশ্বাসী। আপনি চান সবাই আপনাকে প্রশংসা করুক, এমনকি পারলে পুজো করুক। আপনি সব সময় হইচইপূর্ণ জীবন ভালবাসেন। আপনি একজন যৌন উপভোগকারী জীবন সঙ্গী বা সঙ্গিনী। আপনি সব সময় জীবনকে পরীক্ষার দৃষ্টিতে দেখে থাকেন তা সে জাগতিক জীবনই হোক বা আধ্যাত্মিক জীবই হোক।