চাণক্যের এই পাঁচ নীতিতেই আপনার সুখের চাবিকাঠি

চাণক্যের এই পাঁচ নীতিতেই আপনার সুখের চাবিকাঠি

প্রাচীন ভারতের ইতিহাসে চাণক্যের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা। তিনি একজন বড় পন্ডিত, কূটনীতিবিদ ,দার্শনিক এবং অর্থনীতিবিদ ছিলেন। ইতিহাস ঘাটলে দেখা যাবে এমন অনেক গ্রন্থ আছে যেগুলো আজ পর্যন্ত মানুষকে সমানভাবে প্রভাবিত করে আসছে । তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল 'চাণক্য-নীতি'- যা চাণক্যের লেখা শ্রেষ্ট গ্রন্থ। শুধু কেতাবি গবেষণার বিষয় নয় ।

চাণক্য-নীতি সত্যি মানুষের জীবনে আজও সমানভাবে কার্যকর । চানক্য নীতি মেনে চললে জীবনে সফলতা পাওয়া যেতে পারে। চাণক্য-কে সেরা পণ্ডিতদের মধ্যে গণনা করা হয়। এই কারণেই চানক্যের নীতি আজও আলোচনা প্রাসঙ্গিক বিষয়ে উঠে আসে। চাণক্য বলেছেন জ্ঞান হল মানুষের সেরা সম্পদ। একজন জ্ঞানী ব্যক্তির কদর সর্বত্র।

জ্ঞানের জোরে মানুষ এই পৃথিবীর সব কিছু অর্জন করতে পারে। তাই নিজেকে জ্ঞানী করে তোলো। জ্ঞান সৌন্দর্য এবং যৌবনের থেকেও বেশি শক্তিশালী। তবে কখনও জ্ঞানের অহংকারে অন্ধ হওয়া ঠিক বিষয় নয়।  চাণক্য ছিলেন ভারতের শিক্ষক, দার্শনিক, অর্থনীতিবিদ এবং রয়্যাল অ্যাডভাইজার৷

চাণক্যের অর্থনীতি এবং রাজনৈতিক দূরদর্শিতার প্রভাবে আজ তিনি বিশ্বখ্যাত৷ বিশ্ব সংসার সম্পর্কে তার জ্ঞান ছিল অপার৷ কী করলে আপনার জীবন সুখের হবে সেই সম্পর্কেই বিশদ বর্ণনা দিয়েছেন তিনি৷ দেখে নিন সেগুলি....

১) আপনি যদি আর্থিক ক্ষেত্রে সমস্যার সম্মুখীন হন৷ তবে, অবশ্যই কাউকে কিছু জানাবেন না৷ এটি নিজের মধ্যেই রাখুন৷ কারণ টাকা-পয়সার সমস্যায় আপনাকে সাহায্য করতে কেউ এগিয়ে আসবে না৷ তবে, যদি কেউ এগিয়ে আসে তাহলে ভাববেন সেটি ফেক৷

২) নিজের গোপন কথা গোপন রাখুন৷ পাঁচকান করলেই তা আপনি সমস্যার সম্মুখীন হবেন৷ এমনকি আপনার সমস্যার কথা শুনে লোকজন হাসবে আপনার পিছনে৷  

৩) নিজের স্ত্রী-র চরিত্র সম্পর্কে কখনও কাউকে কিছু বলবেন না৷ যারা এই কথা গোপন রাখেন দিনের শেষে তারাই সুখী হবেন৷

৪) সমাজে গরীব ব্যক্তিদেরকে কখনই অবহেলিত করবেন না৷ সবসময় সবাইকে সমান মর্যাদা দিয়ে চলুন৷  

৫) নিজের অপমান অন্য কারোর কাছে প্রকাশ করা উচিত নয়। অন্যের কাছে অপমানের কথা উল্লেখ করা মানে আপনার প্রতিপত্তি হ্রাস পাবে।