পাকিস্তানে অপসারিত গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-য়ের প্রধান

পাকিস্তানে অপসারিত গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-য়ের প্রধান

আচমকাই সেনাস্তরে বড়সড় রদবদল পাকিস্তানে। বুধবার পাকিস্তানের সবচেয়ে প্রভাবশালী গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-য়ের প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফায়াজ হামিদকে সরিয়ে দেওয়া হল। তাঁকে পাঠানো হল পেশোয়ার কর্পস কম্যান্ডার পদে। তালিবান পড়শি দেশ আফগানিস্তান দখল করায় পেশোয়ারে বদলি তাত্‍পর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

হামিদের জায়গায় লেফটেন্যান্ট জেনারেল নাদিম অঞ্জুমকে নয়া ডিজি করা হয়েছে ইন্টার-সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্সের। হামিদের অপসারণ এবং বদলির কথা জানিয়েছে পাকিস্তান সেনার জনসংযোগ বিভাগ। পাকিস্তানের প্রথা অনুযায়ী, আইএসআই চিফকে নিয়োগ করেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু সেই ক্ষমতা প্রয়োগের জন্য সেনাপ্রধানের সঙ্গে আলোচনা করতে হয় প্রধানমন্ত্রীকে।

পাকিস্তান সেনার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদ হল আইএসআই প্রধান। গত ৭৩ বছরের ইতিহাসে সংসদীয় গণতন্ত্রের সমান্তরাল ভাবে দেশের ক্ষমতার শীর্ষে রয়েছে এই গুপ্তচর সংস্থা। দেশের সুরক্ষা এবং বিদেশ নীতিও আইএসআই নিয়ন্ত্রণ করে। বস্তুত পাক সেনা এদিন তাদের বিবৃতিতে জানিয়েছে, হামিদকে বদলি করাও হলেও চিফ পদে এখনই কেউ বসছেন না।

নাদিম অঞ্জুম পাঞ্জাব রেজিমেন্টের আধিকারিক। তিনি করাচি কর্পসের কম্যান্ডার এবং স্টাফ কলেজ, কোয়েটার কম্যান্ডান্ট পদে ছিলেন। বালোচিস্তানে ফ্রন্টিয়ার কর্পসে লড়াই করার অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর। কর্পসের আইজি হিসাবে বহু জঙ্গি ডেরায় হানার নেতৃত্ব দেন তিনি। পাক সংবাদমাধ্যমের ভাষায়, হিমবাহের মতো মস্তিষ্ক কিন্তু যথেষ্ট ক্ষিপ্র নাদিম।

এদিকে সেনাপ্রধান বাজওয়ার ঘনিষ্ট হামিদ আইএসআই-য়ের চিফ হিসাবে পদোন্নতি হওয়ার আগে আড়াই বছর গুপ্তচর সংস্থায় কাজ করেন। দেশের অভ্যন্তরীণ এবং বৈদেশিক সুরক্ষা চ্যালেঞ্জের মুখে ছিল যখন তিনি সংস্থার মাথায় বসেন। গত সেপ্টেম্বরেই তিনি কাবুলে গিয়ে তালিবানদের সঙ্গে বৈঠক করেন বলে খবর।