বৈধ ছিল না নুসরত জাহান-নিখিল জৈনের বিয়ে , জানাল আদালত

বৈধ ছিল না নুসরত জাহান-নিখিল জৈনের বিয়ে , জানাল আদালত

বৈধ ছিল না নুসরত জাহান-নিখিল জৈনের বিয়ে',নিখিল জৈনের মামলায় জানিয়ে দিল আলিপুর আদালত। নুসরত জাহানের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ মামলায় নিখিল দাবি করেছিলেন, 'আমরা স্বামী-স্ত্রীর মতোই থাকতাম'। অন্যদিকে নুসরত জাহান জানিয়েছিলেন, আইনি বিচ্ছেদের কোনও প্রশ্নই ওঠে না, কারণ স্পেশাল ম্যারেজ অ্যাক্টে সিলমোহর প্রয়োজন ছিল, তা মানা হয়নি। প্রেম, বিয়ে, সন্তান, মসৃণ খাতে বয়নি নুসরতের জীবন, তাঁর পিছু ছাড়েনি বিতর্কও।

নিখিল জৈনের সঙ্গে তাঁর সামাজিক বিবাহ, বিচ্ছেদ সবকিছুই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে নিয়ে এসেছিল তাঁকে।এরপর ঈশানের জন্ম, একরত্তি পৃথিবীতে আসার সময় সবসময় নুসরতের পাশে ছিলেন যশ। পরবর্তীকালে নুসরত ও যশ দুজনেই জানান, ঈশান তাঁদের সন্তান। এখন একরত্তিকে নিয়েই সময় কাটছে অভিনেতা অভিনেত্রীর। তার মধ্যে কাজও করছেন চুটিয়ে।  কয়েকদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবিটি ভাগ করে নেন নুসরত। ছবির লেখাটা নুসরতের নিজের না হলেও বোঝা যায়, এই কথা মিলে গিয়েছে তাঁর মনের কথার সঙ্গে।

ছবিতে লেখা, 'আমি জীবনে অনেক ভুল করেছি। কিন্তু প্রত্যেকটা ভুল তোমার সঙ্গে আমায় মেলানো জন্য হয়, আর সেই সমস্ত ভুলের কারণেই যদি আমি এখন, এই মুহূর্তে এখানে থাকি, তাহলে সব ভুলের জন্য আমি নিজেকে ক্ষমা করে দেব।' ছবির শেষে তিনি ট্যাগ করেন যশ দাশগুপ্তের নাম। যশকেই যেন এই বাক্যগুলো বলতে চাইলেন নুসরত।

 অন্যদিকে, বিবাহ ও নুসরতের সন্তান নিয়ে একাধিকবার মুখ খুলেছেন নিখিলও। নুসরত অন্ত্বসঃত্তা সেই খবর পেয়ে তিনি জানিয়েছিলেন, নুসরতের গর্ভের সন্তান তাঁর নয়। নুসরতের সন্তানের জন্মের সময় সবসময় তাঁর পাশে ছিলেন যশ। পরবর্তীকালে নুসরত ও যশ দুজনেই জানান ঈশান তাঁদেরই সন্তান। ঈশানের জন্মের শংসাপত্রে তাঁর নাম ছিল ঈশান জে দাশগুপ্ত। তারপরেই বিভিন্ন সাক্ষাত্‍াকারে নুসরত ও যশ স্বীকার করে নিয়েছেন তাঁদের সম্পর্কের কথা। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিকবার শেয়ার করে নিয়েছেন ছবিও। সদ্য দীপাবলিতে একরত্তি ঈশানের ছবিও প্রকাশ্যে এনেছিলেন যশ।