চীনের সবচেয়ে ধনী গ্ৰাম। যেখানে সকল মানুষই কোটিপতি।

চীনের সবচেয়ে ধনী গ্ৰাম। যেখানে সকল মানুষই কোটিপতি।

গ্রাম সম্পর্কে আমাদের প্রথমে যে ধারণাটা আসে তা হলো অনুন্নত, আর্থিক দিক থেকেও বেশ গ্রামবাসীরা সচ্ছল না।কৃষিকাজের উপর নির্ভর করেই অধিকাংশ মানুষ জীবন যাপন করেন। এমনকি চিকিত্‍সা ব্যবস্থা বা শিক্ষা ব্যবস্থাও ততটা উন্নত নয়। কিন্তু এমন এক গ্ৰাম আছে যেখানে আধুনিক জীবনযাপনের সুবিধা আছে এবং গ্ৰামের প্রতিটা মানুষই কোটিপতি। 

বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চীনের ঝিয়াংসু প্রদেশে অবস্থিত এই গ্রামটি। গ্ৰামটির নাম হল হুয়াক্সি। এই গ্ৰামটিকে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী গ্ৰাম ও বলা হয়। চীনে গ্ৰামটি হুয়াস্কি নয় সুপার ভিলেজ নামে অধিক পরিচিত। গ্রামটি গড়ে উঠেছিল ৬০ দশকের দিকে। তখন অন্যান্য সাদামাটা গ্রামের মতোই ছিল এই গ্রামের অবস্থা। অধিকাংশ জায়গা কৃষি কাজ চলত, পুরোটাই কাঁচা রাস্তা দিয়ে ঘেরা আর সব বাড়িগুলি কাঁচা বাড়ি দিয়ে তৈরি ছিল। ১৯৬১ সালে চীনে ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির সম্পাদক উ রেনবাওয়ের প্রচেষ্টায় গ্রামটি আধুনিক রূপ পায়। তখন হুয়াক্সিকে সামজিক গ্রাম হিসেবে ডাকা হতোহতো। 

গ্ৰামটির বাসিন্দা মাত্র দুই হাজার। প্রতিটি বাসিন্দই বিলাসবহুল জীবনযাপন করেন। এই সমস্ত গ্ৰামবাসীর কোটিপতি হওয়ার পিছনে যে কারণ আছে তা হল এই গ্ৰামে সৃষ্টি হয়েছে বেশ কয়েকটি শিল্প। শিল্প গুলি থেকে বার্ষিক লাভের ২০℅ গ্ৰামবাসীদের মধ্যে বন্টন করে দেয়। 

গ্রামটিতে ৭২ তলার ভবন, বিলাসবহুল শপিং মল, অত্যাধুনিক সব থিম পার্ক ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সহ সমস্ত কিছুই রয়েছে এই গ্ৰামে। এই গ্ৰামে আশ্চর্যজনক হল প্রতিটি ঘরের স্থাপত্যের ধরন, আকার আর নকশার মধ্যে কোনো পার্থক্যই নেই। বাইরে থেকে দেখলে মনে হবে, ছোট ছোট হাজারো হোটেল সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে।

এত কিছু বিলাসবহুলতার মধ্যেও এখানে কিছু  নিয়মের দিক থেকে ও কড়াকড়ি আছে। প্রতিটি গ্ৰামের মানুষকে এখানে ৭ দিনই কাজে নিযুক্ত থাকতে হয়। এছাড়া জুয়া আর মাদক এখানে নিষিদ্ধ। যদি কেউ গ্রাম ছেড়ে একবার চলে যায় তাহলে তার সমস্ত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে দেয় প্রশাসন।