মালদায় মহিলাদের শৌচাগার দখল করে শাসকদলের পার্টি অফিস

মালদায় মহিলাদের শৌচাগার দখল করে শাসকদলের পার্টি অফিস

 তনুজ জৈন  তুলসিহাটা : জোর করে রাতারাতি মহিলাদের শৌচাগার দখল করে নেওয়ার অভিযোগ শাসকদল পরিচালিত অটো ইউনিয়নের বিরুদ্ধে। দখল করে সেখানে ব্যানার লাগিয়ে অটো ইউনিয়নের অফিস করা হচ্ছে বলে অভিযোগ। ব্যানারের একদিকে রয়েছে সভাপতি রিতব্রত ব্যানার্জির ছবি, আরেক দিকে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জির ছবি। এদিকে অটো ইউনিয়ন দখল করার কথা কার্যত স্বীকার করে নিয়েছে।

এই নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করেছে বিজেপি। ঘটনা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন তৃণমূলের ব্লক সভাপতি। মালদহ জেলার হরিশচন্দ্রপুরের তুলসিহাটা বাসস্ট্যান্ডে সরকারি জায়গায় মহিলাদের সুবিধার্থে পাঁচ বছর আগে একটি শৌচাগার নির্মাণ করা হয়েছিল পঞ্চায়েতের তরফ থেকে। অভিযোগ গায়ের জোরে রাতারাতি সেই শৌচাগার দখল করে নিয়েছে শাসকদল পরিচালিত তুলসিহাটা অটো ইউনিয়ন। শৌচাগারের পাশে উপরে ত্রিপল দিয়ে ব্যানার লাগিয়ে অটো ইউনিয়নের অফিস করেছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

এই ঘটনা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। অটো ইউনিয়ন জানিয়েছে তারা দলের নেতাদের জানিয়ে দখল করেছে মহিলাদের শৌচাগার। কিন্তু ঘটনার নিন্দা করেছেন শাসকদলের ব্লক সভাপতি। এদিকে তীব্র কটাক্ষ করেছে বিজেপি। যেখানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একজন মহিলা সেখানে মহিলাদের শৌচাগার দখল করা নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র বিতর্ক। এমনকি দখল করে যে ব্যানার লাগানো হয়েছে তাতে রয়েছে মমতা ব্যানার্জির ছবি। শৌচাগারের পাশে দুটি চায়ের দোকান রয়েছে ,সেই দোকান দুটি সরিয়ে দেওয়া হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন চায়ের দোকানদাররা।

তারাও জানাচ্ছেন সম্পুর্ন দাদাগিরি করে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনো কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। স্থানীয় বাসিন্দা চায়ের দোকানদার গোকুল সাহা বলেন, " অটো চালকরা গায়ের জোরে দাদাগিরি করে দখল করেছে। আমরা চাই এই দখল ওঠানো হোক। কারণ এখানে বহু মহিলা শৌচ কর্মের জন্য আসে। তাদের সমস্যা হবে। চায়ের দোকান সরানো নিয়ে আমাদের কিছু বলেনি।

তবে পরে সরিয়েও দিতে পারে।" অটো ইউনিয়নের কোষাধক্ষ্য আসিফ ইকবাল বলেন, " আমরা সারাক্ষণ এখানে থাকি রোদ-বৃষ্টিতে। তাই আমাদের বসার জন্য উপরে ত্রিপল দিয়ে জায়গাটা নিয়েছি। শৌচাগারের জায়গা ছেড়ে দেওয়া আছে। দখল করার কিছু নেই। আর আমরা সভাপতি এবং স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য কে জানিয়ে করেছি।" হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লক তৃণমূল সভাপতি মানিক দাস বলেন," আপনাদের মুখে ঘটনাটি শুনলাম।

দলগত ভাবে তদন্ত হবে। এটা ঘটে থাকলে খুব নিন্দনীয়। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মহিলা, যিনি মহিলাদের জন্য বহু প্রকল্প চালু করেছেন। তাই এই ধরনের কাজ মেনে নেওয়া যাবে না।" এদিকে এই ঘটনা নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করেছে বিজেপি। বিজেপি নেতা দেবব্রত পাল বলেন, " ঘটনাটা শুনলাম। এই যে দখল করেছে এটাই তৃণমূলের সংস্কৃতি। কাটমানি, দাদাগিরি এইসব ওরা করে।

মানুষ সব দেখছে। পঞ্চায়েত ভোটে এসবের জবাব দেবে।" অটো ইউনিয়নের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠছে তা যথেষ্ট গুরুতর অভিযোগ। বাসস্ট্যান্ডে মহিলাদের শৌচাগার তা দখল করে নেওয়া খুব নিন্দনীয় কাজ। এই ঘটনা ক্ষমতার অপব্যবহার ছাড়া কিছু নয়। প্রশাসনের উচিত অতি দ্রুত ঘটনার তদন্ত করে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া।