বুধবার থেকে পড়ুয়াদের ক্রেডিট কার্ড দেবে রাজ্য

বুধবার থেকে পড়ুয়াদের ক্রেডিট কার্ড দেবে রাজ্য

 বুধবার থেকেই ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য সরকারি ক্রেডিট কার্ড প্রকল্প চালু হচ্ছে। বৃহস্পতিবার একটি সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড প্রকল্প মন্ত্রিসভার অনুমোদন পেয়ে গিয়েছে। ৩০ জুন থেকেই চালু হবে এই প্রকল্প। রাজ্যে বিধানসভা ভোটের প্রচারেই ছাত্র ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার জন্য সরকারি ক্রেডিট কার্ডের ঘোষণা করেছিলেন মমতা।

ভোটের ফল ঘোষণার দু'মাসের মধ্যেই প্রকল্পটি চালু করলেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মমতা বলেন, ''ক্লাস টেন থেকেই ছাত্র-ছাত্রীরা স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা নিতে পারবেন। ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাবেন। তার জন্য কোনও গ্যারেন্টার লাগবে না। সরকার গ্যারেন্টার হবে।'' এই টাকায় স্নাতক, স্নাতকোত্তর, পেশাভিত্তিক পাঠ্যক্রম, ডিপ্লোমা পাঠ্যক্রম, ডক্টরাল এবং পোস্ট ডক্টরাল স্তরে গবেষণার খরচ চালানো যাবে বলে জানিয়েছেন মমতা।

দেশে তো বটেই বিদেশের প্রতিষ্ঠানেও এই ক্রেডিট কার্ডের সাহায্যে পড়াশোনা করা যাবে। ক্রেডিট কার্ডের ঘোষণা করে মমতা বলেন, আর ছেলে মেয়ের পড়াশোনার জন্য ঘরবাড়ি বেচতে হবে না। ছাত্র ছাত্রীরা আমাদের গর্ব। রাজ্য সরকার আপনাদের পাশে আছে।'' তবে যাঁরা ১০ বছর বা তার বেশি সময় পশ্চিমবঙ্গে রয়েছেন তাঁরাই ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

দশম শ্রেণিতে ১২ লক্ষ ছাত্র ছাত্রী পড়াশোনা করে এই রাজ্যে। দ্বাদশে ৯.৫ লক্ষ পড়ুয়া উচ্চ শিক্ষার জন্য ভর্তি হন। এই পরিসংখ্যান জানিয়ে মমতা বলেছেন, ''ইতিমধ্যেই কন্যাশ্রী, স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ প্রকল্প আছে। সংখ্যালঘুদের জন্য ঐক্যশ্রী, এসসি এসটির জন্য শিক্ষাশ্রী আছে। এ বার এই প্রকল্পও আনা হল।'' মমতা জানিয়েছেন, ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত এই কার্ডের সুবিধা নেওয়া যাবে। চাকরি পাওয়ার পর এক বছর সময় পাওয়া যাবে ঋণশোধ শুরু করার জন্য। ১৫ বছরের মধ্যে শোধ করতে হবে ঋণ।