এবার বেসুরো মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়

এবার বেসুরো  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়

বিজেপিতে যোগদান করে প্রথম জনসভায় কালীঘাটে পদ্ম ফোটানোর চ্যালেঞ্জ নিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। মাস ঘুরতে না ঘুরতেই এবার তার ইঙ্গিত মিলল তৃণমূলনেত্রীর পরিবার থেকেই। যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ডায়মন্ড হারবারের সভা থেকে শুভেন্দুর উদ্দেশে বলেছিলেন, 'তোমার বাড়িতে তো জোড়া ফুল রয়েছে, তাঁদের সঙ্গে থাকতে তোমার লজ্জা করে না?'

খড়দহের সভা থেকে শুভেন্দু বলেন, 'বাবু সোনা, বাসন্তী পুজো আসতে দাও, রামনবমী আসতে দাও, আমার বাড়ির লোকেরাও পদ্ম ফোটাবে। তুমি জেনে রাখো, আমি তোমার বাড়িতে ঢুকেও পদ্ম ফোটাব।' বিবেকানন্দ জয়ন্তীর সন্ধ্যায় শুভেন্দুর সেই কথাটাই যেন অনেকের কানে বাজছে।

স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে এক মেলার উদ্বোধন করে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়। বললেন, ‘ভবিষ্যতে কী করবো জানি না।’ প্রতি বছর বিবেকানন্দের জন্মদিনে বিবেক মেলার আয়োজন করেন কার্তিকবাবু। মঙ্গলবার কালীঘাটে সেই মেলার উদ্বোধনে কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতীয় রাজনীতিতে পরিবারতন্ত্রের বিরুদ্ধে সরব হন।

যে পরিবারতন্ত্রের অভিযোগে বিদ্ধ তাঁর নিজের পরিবার। এদিন কার্তিকবাবু বলেন, ‘মুখে দেশের কথা বলবো আর নিজের পরিবারকে সব সুবিধা দেব, এটাই এখন রাজনীতি।' এখানে না থেমে কার্তিক বলেন, 'আগামীদিনে কী হবে, সেটা কেউ বলতে পারে না।

কালকে কী করব? আমি নিজেও জানি না।' তাহলে? এর বেশি আর কিছুই বলেননি কার্তিক। কিন্তু তৃণমূলের অনেকেই বলেন ভাইপোর সঙ্গে কাকার দূরত্ব আলোকবর্ষ সমান। গতবার কার্তিকবাবু বিবেক মেলায়  শুভেন্দু অধিকারীকে ডেকেছিলেন। তবে সেই নিয়ে তোলপাড় পড়ে গিয়েছে কালীঘাটে। তবে রাজনৈতিক মহলের মতে, এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। কালীঘাটেও ফুটতে পারে পদ্ম  ।