যাদের মেরুদণ্ড নেই, তারাই TMC-তে ফেরার কথা ভাববে'- সৌমিত্র খাঁ

যাদের মেরুদণ্ড নেই, তারাই TMC-তে ফেরার কথা ভাববে'- সৌমিত্র খাঁ

গতকাল ট্যুইটারে আক্রমণের পর আজ ফের দিল্লি যাওয়ার আগে রাজীবকে (Rajib Banerjee) নিশানা করলেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ (Soumitra Khan)। তিনি বলেন, "যাদের মেরুদণ্ড নেই, তারা চিন্তাভাবনা করবে তৃণমূলে (TMC) ফিরে যাওয়ার। আর কুকুরের মতো থাকবে। আমি এটা পছন্দ করি না। আমার মনে হয়, বাংলার মানুষ এবার তার জবাব দিয়ে দিয়েছে।

কোনও দলবদলুকে এবার বাংলার মানুষ সমর্থন করেনি। তাই এটা নিয়ে কারও ভাবা উচিত নয়।" মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার সঙ্গে বৈঠক করেন শুভেন্দু। আর বুধবার দুপুর বারোটা থেকে প্রায় চল্লিশ মিনিট তিনি বৈঠক করেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে। আর সেই বৈঠকে কী কী বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, তা নিয়ে শোরগোল পড়েছে রাজ্য রাজনীতিতে।

সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে একাধারে যেমন রাজ্যের ভোট পরবর্তী সন্ত্রাসের বিষয়টি তুলে ধরেছেন শুভেন্দু, অপরদিকে সিএএ চালুর আর্জিও করেছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা। প্রসঙ্গত, রবিবার রাতে দিল্লি গিয়েছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। সোমবার তিনি বৈঠক করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং বিজেপি সভাপতি জে পি নড্ডার সঙ্গে।

বুধবার তাঁর সঙ্গে বৈঠক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। শুভেন্দুর দিল্লি সফরের কথা যে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও জানতেন না, তা প্রকাশ্যেই বলেছেন দিলীপ স্বয়ং। কলকাতায় তিনি বলেছেন, ‘‘শুভেন্দু কেন দিল্লি গিয়েছেন তা দিল্লির নেতারাই বলতে পারবেন।’’ এর পর বুধ-সকালে তিন সাংসদের দিল্লি যাত্রা নিয়ে বিজেপি-র একাধিক রাজ্যস্তরের নেতা জানিয়েছেন, এ বিষয়ে তাঁদের কিছু জানা নেই।

কাকতালীয় ভাবে শুভেন্দু দিল্লিতে থাকাকালীনই সেখানে গিয়েছেন রাজ্য বিজেপি-র ‘বিক্ষুব্ধ নেতা’ হিসাবে পরিচিত তথাগত রায়। মঙ্গলবার তিনিও নড্ডার সঙ্গে বৈঠক করেছেন। একই সময়ে শুভেন্দু, তথাগত, অর্জুন, নিশীথ ও সৌমিত্রর দিল্লিতে থাকা কি একেবারেই সমাপতন না এর পিছনে কোনও নির্দিষ্ট কারণ রয়েছে, তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে বিজেপি-তে।