পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে অবসাদগ্রস্ত দেশ ভারত: মানসিক স্বাস্থ্য দিবস চাঞ্চল্যকর তথ্য

পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে অবসাদগ্রস্ত দেশ ভারত: মানসিক স্বাস্থ্য দিবস চাঞ্চল্যকর তথ্য

আজ বাংলা: আজ ১০ অক্টোবর। গোটা বিশ্বে আজ মানসিক স্বাস্থ্য দিবস হিসেবে পালিত হয়। তবে এই দিনটিতেই এক চাঞ্চল্য কর তথ্য উঠে এল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী পৃথিবীর মধ্যে ভারত সবথেকে অবসাদগ্রস্ত দেশ। 

বলা হয়েছে, এই দেশে প্রতি সাতজনের মধ্যে একজন মানসিক অসুখের শিকার। আমাদের দেশের মানসিক অসুখ নিয়ে সমাজে ট্যাবু থাকায় এই রোগ গোপন করে রাখার প্রবণতা রয়েছে। তার সঙ্গে করোনা অতিমারী এবং লকডাউনের প্রভাবে মনের ওপর চাপ বেড়েছে আরও। 


প্রসঙ্গত, আগেই ধুঁকতে থাকা দেশের অর্থনীতি প্রায় মুখ থুবড়ে লকডাউনের ধাক্কায়। রাতারাতি কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে যান বহু মানুষ। যাঁদের চাকরি টিকে যায়, তাঁদেরও নানা সমঝোতা মুখ বুজে মেনে নিতে হয়। এই সবের ধাক্কা বিধ্বস্ত করে দিয়েছে অনেকের মানসিক স্বাস্থ্যকে।


 করোনায় সংক্রমিত হওয়ার ভয় এবং এই সংক্রান্ত অন্য আতঙ্কে বেড়েছে আত্মহত্যার হার। একটি বেসরকারি সমীক্ষার রিপোর্ট বলছে লকডাউনের মধ্যে সংক্রমণের ভয়, একাকীত্ব এবং ঘরে ফিরতে না পারার কষ্টে আত্মহত্য়া করেছেন অন্তত ১৩৩ জন।


 করোনার কারণে দেশে মনের অসুখে আক্রান্তের সংখ্যাও এক ধাক্কায় অনেকটা বেড়েছে। আত্মহত্যার প্রবণতা ছড়িয়ে পড়েছে পরিযায়ী শ্রমিক, দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে কাজ করা শ্রমিক থেকে ফ্রন্টলাইন হেলথ কেয়ার স্টাফ, ছাত্র-ছাত্রী থেকে কৃষক এমনকি সেলেব্রিটিদের মধ্যেও।


 অনিশ্চয়তা আর আশঙ্কা গ্রাস করেছে সমাজের সর্বস্তরকে। শুধু ভারত নয়, প্রায় গোটা বিশ্বেই মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে সংকট বেড়েছে বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

এর থেকে বাঁচতে আমাদের সবাইকে সবার পাশে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেজন বিশেষজ্ঞরা। কেউ মনের রোগে ভুগলে তাঁর প্রতি সংবেদনশীল হন। এটাও আর পাঁচটা অসুখের মতোই একটা অসুখ। শরীরের মতো মনও ভালো রাখতে নিয়মিত ওয়ার্ক আউট করা জরুরি। 


যে কোনও সূত্র থেকে পাওয়া খবরে বিশ্বাস করবেন না। বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া খবর দেখে আতঙ্কিত হবেন না। আগে তা যাচাই করে নিন। এছাড়া পর্যাপ্ত ঘুম এবং পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো খুবই জরুরি।