হাবড়ারয় অবস্থান বিক্ষোভে তৃণমূল প্রার্থী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক

হাবড়ারয় অবস্থান বিক্ষোভে তৃণমূল প্রার্থী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক

চতুর্থ দফায় শীতলকুচি ও পঞ্চম দফায় দেগঙ্গার পর ষষ্ঠ দফাতেও কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে উঠল গুলি চালানোর অভিযেগ। এদিন ভোটপর্ব চলাকালীন প্রথমে উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া ও পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটে গুলি চালানোর অভিযোগ উঠেছিল। কিন্তু নির্বাচন কমিশন পরিষ্কার জানিয়ে দেয়, ওই দুই জায়গায় গুলি চালায়নি বাহিনীর জওয়ানরা। বিষয়টি মিটতে না মিটতেই ফের উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরে গুলি চালানোর অভিযেগ উঠল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে।

স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের অভিযোগ, তাঁদের দুই কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাঁদের বারাসতের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করানো হয়েছে।  যদিও চোপড়া, মঙ্গলকোটের মতোই নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দেয় অশোকনগরেও গুলি চালায়নি কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। কমিশন সূত্রে খবর, অশোকনগরের ট্যাংরায় ভোট চলাকালীনই দু'দল দুষ্কৃতী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। একটি বুথের বাইরে বোমাবাজিরও ঘটনা ঘটে।

এমনকী, ভোটকর্মীদের বাস ভাঙচুর করা হয়। পরিস্থিত নিয়ন্ত্রণে আনে কেন্দ্রীয় বাহিনী। তবে জওয়ানরা গুলি চালায়নি। দুষ্কৃতীদের গুলিতেই দুই তৃণমূল কর্মী জখম হয়েছেন বলে প্রাথমিক তদন্তে অনুমান করা হচ্ছে।বুথ পরিদর্শনে গিয়ে অবস্থান বিক্ষোভে বসলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তিনি অভিযোগ করেছেন কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভয় দেখানোয় আতঙ্কে এলাকার বাসিন্দারা ভোট দিতে যাচ্ছেন না। সংখ্যালঘু এলাকা বলে কেন্দ্রীয় বাহিনী মারধর করছে বলে গুরুতর অভিযোগ করেছেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক।