অভিনব সাইবার প্রতারণার শিকার তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা| আসরে নামল লালবাজার

অভিনব সাইবার প্রতারণার শিকার  তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা| আসরে নামল লালবাজার

অভিনব সাইবার প্রতারণার শিকার  তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা  দেবনারায়ণ সরকার। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ফ্রেন্ড লিস্টে থাকা পরিচিতদের থেকে টাকা চাওয়া হচ্ছে। সম্প্রতি এমনই অভিজ্ঞতার মুখোমুখী হলেন তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা দেবনারায়ণ সরকার। দিনকয়েক আগেই লালবাজারের (Lalbazar) সাইবার শাখা সতর্ক করে বলেছিল, বিভিন্ন গ্যাং সক্রিয় হয়েছে। নানা কায়দায় সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে বা ভুয়ো ফোন কলে তার প্রতারণার ফাঁদ পাতছে।

কলকাতার তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা দেবনারায়ণ সরকার সম্প্রতি এমনই সাইবার হামলার শিকার হয়েছেন। তাঁর অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করেছে লালবাজারের সাইবার শাখা । তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা দেবনারায়ণ সরকার জানিয়েছেন, তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ফ্রেন্ডলিস্টে থাকা লোকজনকে মেসেজ করে টাকা চাওয়া হচ্ছে। ব্ল্যাকমেল করা হচ্ছে নানাভাবে, এমনকি তাঁর মেসেঞ্জার থেকেই হুমকি দিয়ে মেসেজ পাঠানো হচ্ছে তাঁরই পরিচিতজনদের। অধ্যাপকের বক্তব্য, ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়ার কথা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা  দেবনারায়ণ সরকার। 

ঠিক কী ঘটনা ঘটেছিল? বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এসে  তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা দেবনারায়ণ সরকারের সঙ্গে পরিচয় হয় আইনজীবী গোপাল মণ্ডলের। গোপাল মণ্ডলের দাবি, ৫ সেপ্টেম্বর দেবনারায়ণের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে তাঁর কাছে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট আসে। পূর্ব পরিচিত হওয়ায় তা অ্যাকসেপ্ট করে নেন। তাঁর আরও দাবি, সেদিনই মেসেঞ্জারে ১০ হাজার টাকা চেয়ে বার্তা আসে ওই প্রোফাইল থেকে। এমনকি অনলাইন টাকা ট্রান্সফারের কথা বলে, কোথায় টাকা পাঠাতে হবে, সেই ডিটেলসও দিয়ে দেওয়া হয়।

সন্দেহ হয় তাঁর। এক পরিচিতের মাধ্যমে যোগাযোগ করেন দেবনারায়ণ সরকারের সঙ্গে। গোটা ঘটনা জানার পর যেন আকাশ থেকে পড়েন অধ্যাপক। তাঁর দাবি, ৩-৪ বছর আগে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুললেও তিনি সেটা খুব একটা ব্যবহার করেন না। তাঁর অনুমান, সেই অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে এই কাজ করেছে অপরাধীরা। এপ্রসঙ্গে  তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা দেবনারায়ণ সরকার বলেন, আমি নিজে তো ব্যবহার করি না।

চিন্তা হচ্ছে, আর কতজনকে এভাবে মেসেজ করেছে, কারও থেকে টাকা নিয়েছে, তাও জানি না। আমার কাছে সোশ্যাল প্রেস্টিজ ইস্যু। সাইবার বিশেষজ্ঞ বিভাস চট্টোপাধ্যায়ের মতে, এটা একটা ক্রাইমের পদ্ধতি। চলছে। কড়া আইনের সংস্থান আছে। প্রোফাইলকে প্রোটেক্ট করা প্রয়োজন। ব্যবহার না হলে বন্ধ করে দেওয়া উচিত। এই ঘটনায় ৬ সেপ্টেম্বর লালবাজারের সাইবার ক্রাইম বিভাগে অভিযোগ দায়ের করেন  তৃণমূলের অধ্যাপক নেতা দেবনারায়ণ সরকার।