রণবীরের নগ্ন ফটোশুট নিয়ে কলম ধরলেন অক্ষয়পত্নী টুইঙ্কেল খান্না

রণবীরের নগ্ন ফটোশুট নিয়ে কলম ধরলেন অক্ষয়পত্নী টুইঙ্কেল খান্না

সম্প্রতি রণবীর সিংয়ের নগ্ন ফটোশুট আলোচনার বিষয় সর্বত্র। সেই তর্কবিতর্ক চলছে। কেউ পাশে দাঁড়াচ্ছেন, তো কেউ কটাক্ষ করছেন। অভিযোগ শুধু হয়েছে নয়, এফআইআরও করা হয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে এই মর্মে যে তিনি মহিলাদের অনুভূতিতে আঘাত করেছেন এমন শুট করে। তবে রণবীরের বেশির ভাগ বলিউডের সহঅভিনেতারাই তাঁর এই পদক্ষেপকে সাহসী বলেছেন।

এবার এই প্রসঙ্গে নিজের মতামত দিলেন টুইঙ্কেল খান্না। এই শুটের ছবি দেখতে গিয়ে তিনি কী রকম অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে পড়েছিলন, সেই বিষয়ে নিজের কলামে লিখেছেন। অভিনেত্রী থেকে লেখিকা এখন অক্ষয়পত্নী। নিজের কলামে রণবীরের বিরুদ্ধে ওঠা ক্ষোভ এবং পুলিশের কাছে অভিযোগের বিষয়ে তাঁর যা মনে হয়েছে, “একটি স্বভাবগত প্রতিকৃতির নিরঙ্কুশ সিরিজের বিস্ময়কর প্রতিক্রিয়া”।

অস্বস্তিকর ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে উল্লেখ করেছেন যে তিনি যখন গবেষণার উদ্দেশ্যে তাঁর ল্যাপটপে রণবীরের ছবি বড় করেছিলেন, তখন তাঁর ছেলে আরভ ঘরে ঢুকেছিল। রণবীরের ব্যক্তিত্বের আরও প্রশংসা করেছেন টুইঙ্কেল। এবং তাঁকে ‘গতিশক্তিতে ভরা বাস্কেটবল, উদার প্রশংসা এবং ব্ল্যাশিং গালে চুম্বন’ হিসাবে বর্ণনা করেছেন। তাঁর মতামত ভাগ করে টুইঙ্কল বলেছেন, "রণবীরের ছবিগুলো খুব কম উন্মুক্ত বলেই মনে হয়েছে।

এমনকি ‘চশমা, ম্যাগনিফাইং গ্ল্যাস এবং জুম সরঞ্জামগুলোর সাহায্য নিলেও আমরা কোনও শরীরবৃত্তীয় বিবরণ খুঁজে পাই না’ এবং সেগুলি ‘দুটি সূক্ষ্ম পেশীযুক্ত পায়ের মধ্যে ছায়ার একটি পুল মাত্র"। বিদ্যা বালান, যিনি অতীতে একটি অশ্লীলতার মামলার মুখোমুখি হয়েছেন, তিনি এই বিষয়ে জানিয়েছিলেন যে রণবীরের নগ্ন ফটোশুটে কোনও সমস্যা দেখেননি এবং লোকেদেরকে তাঁদের ‘দৃষ্টি সুখ’ করার অনুমতি দেওয়া উচিত।

তাঁর কলামে টুইঙ্কল বিদ্যার বক্তব্যকে সমর্থন করেছিলেন এবং এটিকে ‘সেরা’ বলেও অভিহিত করেছেন। টুইঙ্কেল বরাবরই নিজের মতামতের বিষয়ে খুব সচেতন। ব্যাঙ্গাত্ম লেখা থেকে সমাজের নানা দিক নিয়ে তিনি কলাম ধরেন। তাঁর কলাম বেশ জনপ্রিয়। এবার তিনি রণবীরের পাশে দাঁড়াতে কলম ধরলেন।