পশ্চিম মেদিনীপুরে সত্‍কার সেরে বাড়ি ফেরার পথে পুকুরে ডুবে মৃত ২, আহত ৬

পশ্চিম মেদিনীপুরে  সত্‍কার সেরে বাড়ি ফেরার পথে  পুকুরে ডুবে মৃত ২, আহত ৬

মৃতদেহ সত্‍কার সেরে বাড়ি ফেরার পথে ৮ জন যাত্রী সমেত পুকুরে ডুবল যাত্রীবাহী গাড়ি। ঘটনায় মৃত ২, আহত ৬। আহতের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা যাচ্ছে। স্থানীয়রা দ্রুত জলে নেমে তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করে। শনিবার এই ঘটনা ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর (West Midnapore) জেলার দাসপুর থানা কামালপুরে।

সূত্রের খবর, মাসির মৃত্যুসংবাদে কলকাতার বেলেঘাটার বাসিন্দা নিমাই মালিক তাঁর পরিবারের আট সদস্যকে নিয়ে আসছিলেন দাসপুরের কামালপুরের বাগবেরা গ্রামে। মাসির মৃতদেহ সত্‍কার করে এদিন বিকালে নিজেদের ব্যক্তিগত গাড়িতে বাড়ি ফেরার সময় ঘটে দুর্ঘটনা।

সূত্রের খবর, গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গ্রামেরই পুকুরে পড়ে গিয়ে পড়ে। দুর্ঘটনার খবর চাউর হতেই তীব্র হইচই শুরু হয়ে যায় গোটা এলাকায়। উদ্ধারকাজে হাত লাগায় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দাসপুর থানার পুলিশ। এদিকে স্থানীয়দের প্রচেষ্টায় ডুবন্ত গাড়ি থেকে প্রাথমিক অবস্থায় ৮ জনকে বের করা যায়।

কিন্তু, ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় নিমাই মালিকের। বাকি ৭ জনকে উদ্ধার করে নিকটবর্তী হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে মৃত্যু হয় ঝুমা কোটাল (৩২) নামে আরও এক মহিলার। তিনি হুগলির বাসিন্দা বলে পুলিশ সূত্রে খবর। ঘটনা প্রসঙ্গে স্বপন আলো দাসপুর পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ বলেন, “এরা সকলেই কলকাতা থেকে রতন পলিতার বাড়িতে এসেছিলেন।

সম্পর্কে উনি নিমাই মালিকের মেশোমশাই হন। তাঁর স্ত্রীই মারা গিয়েছিলেন। তাঁরই শেষকৃত্য শেষ করে বাড়ি ফেরার পথেই ঘটে যায় দুর্ঘটনা। গ্রামের রাস্তা দিয়ে কলকাতা ফিরে যাওয়ার পথে বিকেল পৌনে চারটে নাগাদ পুকুরে উল্টে যায় গাড়িটি। সঙ্গে সঙ্গেই স্থানীয় লোকজন গিয়ে উদ্ধারকাজে হাত লাগায়। গ্রামের লোকেরাই তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়”।

এদিকে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার জেরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে গোটা গ্রামে। ইতিমধ্যেই মৃতদের দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে দাসপুর থানার পুলিশ।