নিমন্ত্রণ ছাড়াই বিয়ে বাড়িতে এসে পিস্তলসহ গ্রেপ্তার হলেন দুই দুষ্কৃতী

নিমন্ত্রণ ছাড়াই বিয়ে বাড়িতে এসে পিস্তলসহ গ্রেপ্তার হলেন দুই দুষ্কৃতী

শীতলকুচি: বুধবার রাতে নিমন্ত্রণ ছাড়াই বিয়ে বাড়িতে এসে পিস্তলসহ গ্রেপ্তার হলেন দুই দুষ্কৃতী। ঘটনাটি কোচবিহার জেলার শীতলকুচি ব্লকের শীতলকুচি গ্রামের। এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়।প্রতিবেশীরা জানায়, বুধবার এই গ্রামের দিলীপ বর্মনের মেয়ের বিয়ে ছিল। ধুমধাম করে মেয়ের বিয়ের আসর বসানো হয়েছিল তার নিজ বাড়িতে।

সবকিছুই ঠিকঠাক ভাবেই চলছিল। এরপরে আনুমানিক রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ পাঁচজন যুবক বিয়ের অনুষ্ঠানে প্রবেশ করে। বিয়ের অনুষ্ঠানে ডিজের সামনে অশালীন ভাবে নাচ করতে থাকে তাঁরা। নেশাগ্রস্ত যুবকদের ব্যবহার দেখে সন্দেহ শুরু হয় বিয়েতে আসা আত্মীয়স্বজনের। তাঁদের চিনতে পারছিলেন না কেউই।

বাধ্য হয়ে কনে পক্ষের লোকজন যুবকদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। যুবকেরা নিজেদের বরপক্ষের আত্মীয় বলে পরিচয় দেন। কনে পক্ষের অভিভাবকরা বরপক্ষের অভিভাবকদের বিষয়টি জানান। বর পক্ষের অভিভাবকরা চিন্তায় পড়েন। তারাও চিনতে পারছিলেন না ওই যুবকদের। বরের আত্মীয়স্বজনের কাছে কনে পক্ষের আত্মীয় বলে পরিচয় দেন যুবকেরা। এতে বর ও কনে দু’পক্ষেরই সন্দেহ বেড়ে যায়। এরকমই সময় বিদ্যুতের বিভ্রাট ঘটে।

বন্ধ হয়ে যায় ডিজের সাউন্ড। এরপরেই যুবকেরা রেগে যান। কনে পক্ষের আত্মীয়দের সঙ্গে বচসা শুরু হয় তাঁদের। শেষে নিজের কাছে থাকা পিস্তল দেখিয়ে ভয় দেখাতে থাকেন বিয়েতে আসা আত্মীয়-স্বজনদের। এরপর তিনজন যুবক পালিয়ে যায় সেখান থেকে। কিন্তু দুই যুবককে আটকে রাখেন বিয়েতে আসা আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীরা।

গণধোলাই দিয়ে অস্ত্র সমেত দুই যুবককে রাতেই পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তবে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত দুই যুবকের বাড়ি শীতলকুচি ব্লকের পাঠানটুলি এলাকায়।বিয়ের অনুষ্ঠানের অভিভাবক দিলীপ বর্মন বলেন, ধৃত যুবকদের আমি চিনি না। তাদের বিয়েতে আসার নেমন্তন্ন দেওয়া হয়নি।

বরপক্ষের তরফেও তাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। কী উদ্দেশ্যে তারা বিয়েতে এসে ঝামেলা করলো তা বুঝতে পারছি না। পিস্তল সহ প্রতিবেশীরা পুলিশের হাতে দুই যুবককে তুলে দিয়েছে। আমি এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার শীতলকুচি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।শীতলকুচি থানার ওসি কাজল সরকার বলেন, পিস্তলসহ রাতেই ওই দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।