নিউ টাউনে পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হল দুই কুখ্যাত দুষ্কৃতীর

নিউ টাউনে পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হল দুই কুখ্যাত দুষ্কৃতীর

নিউ টাউনের অভিজাত শাপুরজি আবাসনে দিনেদুপুরে শ্যুটআউট। পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হল পঞ্জাবের দুই কুখ্যাত দুষ্কৃতীর। ঘটনায় আহত হয়েছেন রাজ্য পুলিশের এসটিএফ-এর একজন অফিসার। একটি বেসরকারি হাসপাতালে তাঁর চিকিত্‍সা চলছে। জানা গিয়েছে, পঞ্জাবের মোস্ট ওয়ান্টেড দুই দুষ্কৃতী কয়েকদিন ধরেই শাপুরজি এলাকার একটি আবাসনে এসে গা ঢাকা দিয়েছিল।

খবর পেয়ে এ দিন সেখানে হানা দেয় রাজ্য পুলিশের স্পেশ্যাল টাস্ক ফোর্স। অভিযোগ, পুলিশ হানা দিয়েছে বুঝতে পেরেই আচমকা একটি ফ্ল্যাট থেকে বেরিয়ে এসে বাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে শুরু করে দুই দুষ্কৃতী। পাল্টা জবাব দেয় এসটিএফ-ও। গুলির লড়াইয়ে প্রাণ হারায় দুই দুষ্কৃতী। ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন বিধাননগর পুলিশের শীর্ষ কর্তারা।

পুলিশের অনুমান, আবাসনের ভিতরে আরও কয়েকজন দুষ্কৃতী থাকলেও থাকতে পারে। ফলে গোটা এলাকা ঘিরে ধরে আবাসনের ভিতরে তল্লাশি শুরু করা হয়েছে। একই সঙ্গে আবাসনের বাসিন্দাদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতেও ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। নিউ টাউন সহ শহরে ঢোকা বেরনোর সমস্ত পথেও কড়া নজরদারি শুরু হয়েছে যাতে এই দুই দুষ্কৃতীর কোনও সঙ্গী পালাতে না পারে।

পুলিশ সূত্রে খবর. নিহত দুই দুষ্কৃতীর নাম জয়পাল ভুল্লার এবং যশপ্রীত জস্সি। জানা গিয়েছে, এই দুই দুষ্কৃতীই মাদক এবং অস্ত্র পাচারোর মতো অপরাধের সঙ্গে যুক্ত। পঞ্জাবের একাধিক থানায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল। কীভাবে এই দুই দুষ্কৃতী নিউ টাউনের এই অভিজাত আবাসনে এসে গা ঢাকা দিল, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। গত রবিবার বীরভূমের সিউড়ি থেকে অস্ত্র এবং বিস্ফোরক সমেত একটি ট্রাক আটক করে পুলিশ। বিহার থেকে আসা ওই ট্রাকটি থেকে দু' জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সূত্রের খবর, ওই দু'জনকে জেরা করেই পঞ্জাবের এই দুষ্কৃতীর খোঁজ পায় পুলিশ। জানা যায় পঞ্জাবের এই দুই অপরাধীই ওই বিস্ফোরক এবং অস্ত্রের বরাত দিয়েছিল। মোস্ট ওয়ান্টেড দুই অপরাধী কোথায় লুকিয়ে আছে সে সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েই এ দিন বেলা তিনটে নাগাদ শাপুরজি আবাসনে হানা দেয় এসটিএফ এবং পুলিশের একটি দল। তখনই গুলি চালায় দুই দুষ্কৃতী। ইতিমধ্যেই পঞ্জাব পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে রাজ্য পুলিশ।