শরীরে জলের ঘাটতি কি না বুঝে নিন এই লক্ষণগুলিতে 

শরীরে জলের ঘাটতি কি না বুঝে নিন এই লক্ষণগুলিতে 

শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে জল না গেলে ডিহাইড্রেশনের সম্ভাবনা থাকে, মানব দেহের শারীরবৃত্তীয় কার্যকলাপ ব্যাহত হতে পারে।দেহে জলের ঘাটতি দেখা দিলে, শরীরে  বিভিন্ন উপসর্গের মাধ্যমে তা আগাম জানা যায়। এই উপসর্গগুলি যদি আপনার শরীরে দেখা দেয় তাহলে এখুনি সতর্ক হন  

যাদের শরীরে জলের ঘাটতি থাকে তাদের মিষ্টি বা নোনতা জাতীয় খাবারের প্রতি আকর্ষণ বেড়ে যায়। লিভার জলের সাহায্যে গ্লাইকোজেন তৈরি করে, যা শরীরে এনার্জি জোগায়। কিন্তু আমাদের শরীরে জলের অভাব দেখা দিলে লিভার ঠিক মতো কাজ করে না। ফলে শরীরের আরও বেশি খাবারের প্রয়োজন হয়। 

মাইল্ড ডিহাইড্রেশনের ফলে মাথা ধরা এবং ক্লান্তিভাব দেখা দিতে পারে। ঘাম, মল-মূত্র ত্যাগ এমনকী শ্বাস-প্রশ্বাসের সঙ্গেও শরীর থেকে কিছুটা জল বেরিয়ে যায়। শরীরে জলের সেই অভাব পূরণ না হলে মাথা ধরা, ক্লান্তিভাব দেখা দিতে পারে। 

জল পান কম হলে কম লালা তৈরি হয় এবং মুখের ভেতরের ব্যাকটেরিয়ার মাত্রা অনেকটাই বেড়ে যায়। ফলে মুখে দুর্গন্ধ ছড়ায়। তাই দৈনিক জল পান করার পরিমাণ বাড়ান। 

মূত্রের মাধ্যমে শরীর থেকে প্রচুর পরিমাণে টক্সিন বের হয়ে যায়। তবে জল কম পান করলে, ইউরিন কম হয়। এছাড়াও, মূত্রের রং গাঢ় হলুদ হয় এবং জ্বালাভাব অনুভূত হয়।

জল শরীর থেকে টক্সিন, ব্যাকটেরিয়া এবং বিভিন্ন বর্জ্য বের করে দিতে পারে। জল কম পান করলে শরীর থেকে ওই বিষাক্ত পদার্থগুলি বেরোয় না। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও দুর্বল হতে শুরু করে। 


শরীরে যদি টক্সিন জমে থাকে, তাহলে তা ত্বকের ওপরেও খারাপ প্রভাব ফেলতে পারে। এর ফলে ত্বক ঔজ্জ্বল্য হারায়, রিঙ্কেলস পড়তে শুরু করে। শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণ জলের অভাবে ত্বক শুষ্ক-রুক্ষ হয়ে যায়।