কলকাতা থেকে ২ রোহিঙ্গা যুবকে গ্রেপ্তার করলো উত্তরপ্রদেশ পুলিশ

কলকাতা থেকে ২ রোহিঙ্গা যুবকে গ্রেপ্তার  করলো উত্তরপ্রদেশ পুলিশ

জাল নথিপত্র দিয়ে বাংলাদেশি নাগরিকদের ভারতে অনুপ্রবেশে সাহায্য। দীর্ঘদিন ধরে এই বেআইনি কাজ করার পর অবশেষে কলকাতা থেকে গ্রেপ্তার হল দুই রোহিঙ্গা (Rohingya) যুবক। উত্তরপ্রদেশ এটিএস (ATS) তাদের গ্রেপ্তারির পর ট্রানজিট রিমান্ডে নিচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। ধৃত দু’জন মায়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিম বলে খবর। আরও কোন বেআইনি কাজের সঙ্গে তারা যুক্ত, কতদিন ধরে এ ধরনের চক্র চালাচ্ছে, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

কলকাতায় অনুপ্রবেশকারীদের সাহায্য করে অন্য কোনও নাশকতার ছক ছিল কি না, তাও জানতে চাইছেন তদন্তকারীরা।  পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতদের নাম মহম্মদ জামিল এবং নূর আমিন। জামিল ওরফে হাসিরুল্লাহ কয়েকদিন আগেই বাংলাদেশ (Bangladesh) হয়ে পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করে। ভারতে এসে মহম্মদ জামিল নাম নিয়ে ভারতীয় বাসিন্দা হিসেবে জাল পরিচয়পত্র হাতে পায়। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা থেকে সে জাল নথি বানিয়েছিল।

অন্যদিকে, নূর আমিন নদিয়ার (Nadia) সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে, সেখান থেকেই জাল নথিপত্র বানায়। এখানকার বাসিন্দা হিসেবে পরিচয় দিতে তিনি হিন্দু নাম গ্রহণ করেন। সুদীপ মাইতি নামে নিজের নথি তৈরি করে আমিন।  উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) এটিএস জানিয়েছে, মহম্মদ জামিল উত্তরপ্রদেশের আলিগড়েও বেশ কয়েকদিন কাটিয়েছেন।

শুধু জামিলই নয়, গোটা রাজ্য থেকে অন্তত ২০ জন অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গা যুবকদের গ্রেপ্তার করেছে এটিএস। তদন্তকারীদের অনুমান, এর পিছনে একটি বড়সড় চক্র কাজ করছে। এই চক্রের মূল কাজ জাল নথিপত্র বানিয়ে বাংলাদেশ বা মায়ানমারের বাসিন্দাদের বেআইনি পথে ভারতে ঢুকতে সাহায্য করা। তবে উত্তর ২৪ পরগনা এবং নদিয়া দিয়ে ভারতে প্রবেশের পর জামিল এবং আমিন কী উদ্দেশে কলকাতায় এল, তা নিয়েই সন্দিগ্ধ তদন্তকারীরা। তবে দুই রোহিঙ্গা যুবকের গ্রেপ্তারি শহরের নিরাপত্তায় বড়সড় প্রশ্ন তুলে দিল বলে মনে করা হচ্ছে।