ব্যাসদেব গুহায় বসে লিখেছিলেন মহাভারত! জানেন সেই গুহা কোথায় ?

ব্যাসদেব গুহায় বসে লিখেছিলেন মহাভারত! জানেন সেই গুহা কোথায় ?

ভারতের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে তো যান, কিন্তু এটি কী জানেন, ভারতের কোথায় মহর্ষি বেদব্যাস হাজার বছর আগে বসবাস করতেন? অনেকেই এই প্রশ্নের উত্তর অজানা। Uttarakhand উত্তরাখণ্ডের মানা নামক একটি গ্রাম। যাকে ‘হিন্দুস্তানের শেষ গ্রাম’ নামে অভিহিত করা হয়। আর এই গ্রামটি এমনি এমনি বিখ্যাত হয়নি। কারই এই সুন্দর গ্রামের একটি বিশাল পাথরের গুহা রয়েছে, যেখানে নাকি হাজার বছর আগে বাস করতেন মহর্ষি বেদব্যাস।

স্থানীয়রা ওই গুহাটিকে ব্যাস গুহা বলে থাকেন। অনেকেই বিশ্বাস করেন যে, এই গুহাতে বসেই মহাভারত রচনা করেছিলেন তিনি। এই গুহাতেই নাকি স্বয়ং গনেশ বেদব্যাসকে মহাভারত রচনায় সাহায্য করেছিলেন। তবে স্থানীয়দের বিশ্বাসের সঙ্গে পুরতত্ত্ববিদদের কথার কিছু পার্থক্য রয়েছে। এই পাথরের গুহার ছাদটি বেশ অদ্ভূত।

আশেপাশের সব পাহাড় মসৃণ ও পাহাড়ি ঢাল থাকলেও এই গুহার ছাদটি দেখে মনে হয়, কোন বিশাল পুঁথি যেন এখানে প্রস্তরীভূত হয়ে রয়েছে। স্থানীয়দের বিশ্বাস, বেদব্যাস বৃহত্তর মহাভারত রচনার সময় অনেক অংশ প্রকাশ করতে চাননি। তাই সেই পৃষ্ঠাগুলি এখানে এইভাবে প্রস্তীভূত করে রেখেছেন। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৬১০ মিটার উচ্চতায় এই গুহাটি অবস্থিত।

গুহার পাশ দিয়ে বয়ে গিয়েছে সুতলেজ নদী। চারধামের অন্যতম ধাম বদ্রীনাথ থেকে এই গুহাটি বেশ কাছেই। উত্তরাখণ্ডের অন্যতম দর্শণীয় ও আকর্ষণীয় বদ্রীনাথ মন্দিরে ঘুরতে গেলে এই ব্যাস গুহাটিও দেখে আসতে পারেন। প্রচলিত বিশ্বাস মতে, এই গুহাতেই নাকি কয়েক হাজার বছর আগে বাস করতেন মহাঋষি বেদব্যাস।  অনেকে বিশ্বাস করেন এই গুহাতে বসেই মহাভারত রচনা করেছিলেন বেদব্যাস।

  এই গুহার ছাদটি বেশ অদ্ভুত, আর এটি এর প্রধান আকর্ষণ।ছাদটি দেখলে মনে হয়, কোন বিশাল পুঁথি যেন এখানে প্রস্তরীভূত হয়ে আছে। স্থানীয়দের বিশ্বাস বেদব্যাস বিশাল মহাভারতের কিছু অংশ কাউকে জানতে দিতে চাননি। তাই সেই কয়েকটি পৃষ্ঠা এখানে প্রস্তরীভূত করে ফেলেন।

সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে ৬১০ মিটার উচ্চতায় এই স্থানটি অবস্থিত। ব্যাস গুহার পাশ দিয়ে বয়ে গেছে সুতলেজ নদী।চার ধামের অন্যতম বদ্রীনাথ থেকে এই গুহাটি একদম কাছে। কেউ বদ্রীনাথ বেড়াতে গেলে অবশ্যই ঘুরে আসতে পারেন ব্যাস গুহা। গুহার পাশেই রয়েছে পাইন ও জুনিপার বন। বছরের একটা দীর্ঘ সময় গুহা সংলগ্ন পাহাড় বরফে ঢেকে থাকে। এডভাঞ্চারপ্রিয় মানুষেরা ক্লাইম্বিং ও প্যারা গ্লাইডিং এর জন্য ভীড় জমান এখানে।