ভগবান শ্রীকৃষ্ণ সম্পর্কিত জানা অজানা নানান তথ্য

ভগবান শ্রীকৃষ্ণ সম্পর্কিত জানা অজানা নানান  তথ্য

আজবাংলা   গোটা মহাভারত জুড়ে শুধুই তিনি। সবকিছুই পরিচালনা করেছেন নিজে দাঁড়িয়ে থেকে একা। তাঁর জন্মদিন পালন হতে চলে আগামী মঙ্গলবার। ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মের দিনটিকে আমরা জন্মাষ্টমী নামে অভিহিত করে থাকি। সনাতন হিন্দু ধর্মে মনে করা হয়, এই বিশেষ দিনটিই শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব হয়েছিল। তাঁর নিজের মামার কংসের কারাগারে বন্দি ছিলেন তাঁর মাতা দেবকী ও পিতা বসুদেব। তাঁর মাতা পিতার বন্দি থাকাকালীন শ্রীকৃষ্ণের জন্ম হয়। 

আগামী মঙ্গলবার জন্মাষ্টমী পালন করা হবে। তাঁর আগে ভগবান  শ্রীকৃষ্ণের সম্পর্কে কিছু জানা অজানা বিস্তারিত তথ্য জেনে নিই চলুন।

১} ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্ম হয় ৩১১২ খৃস্টপূর্বাব্দে। তাঁর জন্ম হয় দ্বাপরযুগে।  ২} শ্রীকৃষ্ণ হলেন বিষ্ণুর অষ্টম অবতার। 

৩} মনে করা হয়, শ্রীকৃষ্ণের সম্পর্কে ভাই ছিলেন জৈন ধর্মের ২২তম তীর্থঙ্কর আরিশটা নেমিনাথ। ৪} পুরাণে কথিত আছে, শ্রীকৃষ্ণ শ্যামবর্না ছিলেন। তবে অন্য মতের প্রভেদ উল্লেখ পাওয়া যায় যে তাঁর গায়ের রং ছিল বর্ষার মেঘের মতো।

৫} জন্মের রাতেই শ্রীকৃষ্ণকে কংসের কারাগার থেকে গোকূলে নন্দের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে তিনি নন্দ ও যশোদার সন্তান হিসেবে বড় হতে থাকেন। ৬} তাঁর মামা কংস আগে থেকেই জানতেন, যে কৃষ্ণই বড় হয়ে তাঁকে হত্যা করবে। আর সেই কারণেই কৃষ্ণের জন্মের আগেই দেবকী ও বসুদেবকে কারাগারে বন্দি করেন। তাঁর মামা দেবকীর গর্ভের একের পর এক সন্তানের জন্ম হওয়া মাত্রই তাদের সকলকে হত্যা করেন থাকেন।

৭} শ্রীকৃষ্ণের শঙ্খের নাম ছিল পাঞ্চজন্য, গদার নাম ছিল কৌমুদকী, ধনুকের নাম ছিল সরঙ্গ ও তাঁর খড়গের নাম ছিল নন্দক।