আগামী ৪৮ ঘন্টায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ ধেয়ে আসছে ভারী বৃষ্টি

আগামী ৪৮ ঘন্টায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ ধেয়ে আসছে ভারী বৃষ্টি

আজ বাংলা: আজ পঞ্চমী। এদিন সকাল থেকেই রোদ ঝলমলে আকাশ (weather)। সেই সঙ্গে রয়েছে ভ্যাপসা গরম। বাতাসে জলীয় বাষ্প বেশি থাকায় আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি বজায় রয়েছে। 

যদিও উত্তরবঙ্গ থেকে মৌসুমী বায়ু বিদায় নেওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হলেও, দক্ষিণবঙ্গের ক্ষেত্রে বেশ কিছু দিন সময় লাগবে। জানা গিয়েছে, আন্দামান নিকোবরে মৌসুমী বায়ু এখনও সক্রিয় রয়েছে। তা অনেকটাই হাল্কা ভাবে রয়েছে, বিহার, ঝাখণ্ড, সিকিম এবং পশ্চিমবঙ্গের ওপরে।


 ইতিমধ্যেই ওড়িশায় ভারী বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি হয়েছে আন্দামান নিকোবরেও। স্বল্প বৃষ্টি হয়েছে সিকিম এবং পশ্চিমবঙ্গে। তবে বিহার ও ঝাড়খণ্ডের আবহাওয়া মোটামুটি ভাবে শুকনো রয়েছে। তবে উত্তর প্রদেশ বিহার এবং পশ্চিমবঙ্গের উত্তরাংশ থেকে মৌসুমী বায়ু বিদায় নেওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

অন্যদিকে মধ্য বঙ্গোপসাগরে যে ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছিল, তা নিম্নচাপে পরিণত হয়ে একই জায়গায় অবস্থান করছে। সমুদ্রের গড় উচ্চতা থেকে ৭.৬ কিমি পর্যন্ত তা বিস্তৃত রয়েছে। তা আরও শক্তিশালী হবে। আগামী ৪৮ ঘন্টায় তা উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে পরবর্তী ৩ দিনে তা উত্তর উত্তর পশ্চিম দিকে এগিয়ে যাবে।

আপাতত ভারী বৃষ্টি না হলেও উত্তরবঙ্গে জন্য হাল্কা বৃষ্টির পূর্বাভাস। তবে হাল্কা বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাতের কথাও জানিয়েছে আলিপুর হাওয়া অফিস। এদিন দুপুরে দেওয়া আবহাওয়ার বার্তায় বলা হয়েছে, বুধবার আবহাওয়া শুকনো থাকবে। তবে পরবর্তী ৪৮ ঘন্টায় হাল্কা বৃষ্টি হতে পারে।


এদিন দুপুরে দেওয়া আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, বুধবার কলকাতা, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রামকে বাদ দিয়ে সমগ্র দক্ষিণবঙ্গের কোথাও না কোথাও বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি হতে পারে। পরবর্তী ৪৮ ঘন্টায় অর্থাৎ বৃহস্পতিবার ও শুক্রবারে দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।