জেনে নিন গণ অনুযায়ী আপনার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য কেমন

জেনে নিন গণ অনুযায়ী আপনার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য কেমন

আজবাংলা      রাশির সঙ্গে সব মানুষেরই ভাগ্য জড়িয়ে থাকে। ঠিক তেমনই গণের সঙ্গেও মানুষের ভাগ্যচক্র জড়িয়ে থাকে। মানুষের জীবনের নানা বিষয় বিভিন্ন ভাবে রাশি ও গণের সঙ্গে জড়িয়ে থাকে। বৈদিক মত অনুযায়ী ব্যক্তির গণ যা হবে, সেই অনুসারে ঠিক তার স্বভাব হবে।

গণের উপর নির্ভর করে মানুষের জীবনের অনেক কিছু বলা সম্ভব হয়।দেখে নেওয়া যাক নক্ষত্রগত দিক থেকে কী ভাবে গণ বিচার করা যেতে পারে—


দেব গণমানুষের গণের বিচার সব সময় কোষ্ঠীর নক্ষত্র অনুযায়ী হয়। অশ্বিনী, রেবতী, হস্ত, পুষ্প, পুনর্বসু, অনুরাধা, শ্রাবণা ও স্বাতী নক্ষত্র যাঁদের, তাঁদের দেব গণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।


চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য: এই গণের মানুষরা খুব সহজ সরল স্বভাবের হন এবং এঁদের দেখতে সাধারণত সুশ্রী হয়। এঁদের বুদ্ধিও যথেষ্ট থাকে। চেহারাও হয় সুঠাম। আত্মসম্মানের গুরুত্ব এঁদের কাছে প্রবল। 

নর গণ
পূর্ব ফাল্গুনী, পূর্ব অশধা, পূর্ব ভাদ্রাপাদ, উত্তর অশধা, উত্তর ভাদ্রপাদ, আদ্রা, রোহিণী, ভরণী নক্ষত্র যাঁদের, তাঁদের নর গণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য: এই ব্যক্তিরা যদি কোনও ভাবে খারাপ হয়, তা হলে তা রাক্ষস গণের থেকেও ভয়ঙ্কর হয়। আর যদি ভাল হয়, তা হলে দেবতুল্য মানুষ হতে পারেন।


রাক্ষস গণ
রাক্ষস গণ নির্ধারণের জন্য কোষ্ঠীতে কোন নক্ষত্র রয়েছে তা দেখার প্রয়োজন হয়। কৃতিকা, মঘা, অশ্লেষা, শতভিষা, চিত্রা, জ্যেষ্ঠা, ধনিষ্ঠা ও মূলা নক্ষত্র যাঁদের রয়েছে, তাঁরা রাক্ষস গণের মধ্যে পড়েন।


চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য: এঁদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য বলতে গেলে, এঁদের মধ্যে রেগে যাওয়ার প্রবণতা খুব বেশি থাকে। সময়ে-অসময়ে এঁরা হঠাৎ রেগে ওঠেন।