জেনে নিন বার্ড ফ্লু কি ও এর উৎপত্তি কোথা থেকে

জেনে নিন বার্ড ফ্লু কি ও এর উৎপত্তি কোথা থেকে

আজবাংলা   বার্ড ফ্লু একটি সংক্রামক ভাইরাসজনিত রোগ। সাধারণত পোলট্রি শিল্পের পশুপাখি যেমন মুরগি, হাঁস, কোয়েল ইত্যাদির নিবিড় সংস্পর্শে এলে এ রোগের সংক্রমণ হয়ে থাকে। আবার আক্রান্ত রোগীর থেকেও স্বাভাবিক লোকের মধ্যে এ রোগ ছড়াতে পারে। সাধারণত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে এ রোগের সংক্রমণ বেশি হয়।

১৯৯৭ সালে হংকংয়ে প্রথম মানুষের দেহে এই ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া যায়। বর্তমানে এই ভাইরাসকে মানুষের জন্য ক্ষতিকারক হিসাবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এজন্য এ রোগকে জুনোটিক ডিজিজ বলা হয়। সাধারণত ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস থেকে এ রোগের উৎপত্তি। এ ভাইরাস সাধারণত সর্দি, কাশি সৃষ্টি ছাড়াও বিভিন্ন ধরণের মহামারী যেমন সোয়াইন ফ্লু বা বার্ড ফ্লু আকারে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

কীভাবে সংক্রমণ হয় : ১. আক্রান্ত পশুপাখির প্রত্যক্ষ সংস্পর্শে এলে বা বর্জ্য থেকে বার্ড ফ্লু হতে পারে। ২. আক্রান্ত ব্যক্তির প্রত্যক্ষ সংস্পর্শে এলে অন্য লোকদের বার্ড ফ্লু হতে পারে। ৩. আক্রান্ত পাখির ডিম/মাংস সঠিকভাবে সিদ্ধ না করে খেলে বার্ড ফ্লু হতে পারে।

বার্ড ফ্লুর লক্ষণ : সাধারণত সংক্রমণের ১-৩ দিন পর রোগীর ঠাণ্ডার লক্ষণ প্রকাশ পায় যেমন- জ্বর, গা ব্যথা, গা ম্যাজম্যাজ করা, মাথাব্যথা, মাংসপেশি ব্যথা, বমি, পাতলা পায়খানা, কাশি ইত্যাদি। বার্ড ফ্লু ভাইরাস শ্বাসনালীর সঙ্গে বাধার পর ভাইরাল নিউমোনিয়ার মতো লক্ষণ প্রকাশ করে এবং ক্ষেত্র বিশেষে রোগী রেসপিরেটরি ফেইলারে চলে যায়। যেখানে মৃত্যু ঝুঁকি বেড়ে যায়।

সুদূরপ্রসারী জটিলতা হিসেবে মস্তিষ্কের সংক্রমণ বা এনসেফালাইটিস, হৃৎপিণ্ডের সংক্রমণ বা মায়োকার্ডাটাই, মাংসপেশিতে সংক্রমণ বা মায়োসাইটিস ইত্যাদি হতে পারে।


রোগ নির্ণয় : সাধারণত ভাইরাস কালচার অথবা ভাইরাস এনটিজেন, আর এন এ আর টি পি সি আর দিয়ে নাক এবং মুখগহ্বর থেকে লালার নমুনা নিয়ে এই রোগ নির্ণয় করা হয়।


চিকিৎসা :  সাধারণত নিউরামিনিডেজ প্রতিরোধক, মুখে খাওয়ানোর এন্টিভাইরাল ওষুধ যেমন- ওজেলটানিভির ৭৫ মি.গ্রা. ১২ ঘণ্টা পরপর অথবা নাক দিয়ে টানার জন্য ইনহেলার জেনামিভির ১০ মি.গ্রা. ১২ ঘণ্টা পরপর প্রদান করা যেতে পারে। এছাড়াও আক্রান্ত এলাকায় যাদের পশুপাশির সংস্পর্শে বেশি আসার সম্ভাবনা থাকে তাদের প্রতিরোধ হিসেবে এন্টিভাইরাল ওষুধ প্রদান করা যেতে পারে।

প্রতিরোধ : যারা পোলট্রি ফার্মে কাজ করেন তাদের মাস্ক গাউন পরে কাজ করতে হবে। কোনো পশুপাখি সাধারণ সর্দি- কাশির লক্ষণ প্রকাশ করলে পশু ডাক্তারের কাছে নিতে হবে এবং চিকিৎসা করাতে হবে। যদি বার্ড ফ্লু ভাইরাস শনাক্ত হয় তাহলে সব পশুপাখিকে ইনসিনারেশন বা পুড়িয়ে গর্তে পুঁতে ফেলতে হবে।

পশুপাখি ভালোমতো সেদ্ধ করে খেতে হবে। পাখির ডিম ভালোমতো সেদ্ধ করে খেতে হবে। পোলট্রি ফার্মের কর্মচারীদের বার্ষিক ইনফ্লুয়েঞ্জা ভেকসিন নিতে হবে।