বিজেপির ভোট যেখানে বেশী সেখানে উন্নয়নের কাজ বন্ধ করার নির্দেশ অনুব্রতর

বিজেপির ভোট যেখানে বেশী সেখানে উন্নয়নের কাজ বন্ধ করার নির্দেশ অনুব্রতর

আজবাংলা     দলীয় সভা থেকে ফের বেফাঁস অনুব্রত মণ্ডল । এবার বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি দলের নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দিলেন, “যেখানে বিজেপিকে ভোট, সেখানে বন্ধ করে দিন উন্নয়নের কাজ।” তৃণমূলের দাপুটে নেতার এহেন মন্তব্যে বিতর্কের ঝড় বইতে শুরু করেছে রাজনৈতিক মহলে।

রবিবার নলহাটি ১ নম্বর ব্লকে তৃণমূলের বুথভিত্তিক সম্মেলন ছিল। সেখানে ৮৮ নম্বর বুথ নিয়ে কথা বলার সময় বুথ সভাপতি জানান, ওই এলাকায় পিছিয়ে শাসকদল। হারানো আসন ফিরে পাওয়ার কোনও সম্ভাবনাও নেই। কারণ, ওই এলাকা সম্পূর্ণ হিন্দু এলাকা এবং প্রত্যেকেই বিজেপির সমর্থক।

একথা শুনে অনুব্রতবাবু প্রশ্ন করেন, ওই এলাকায় আদৌ উন্নয়ন হয়েছে কি না। বুথ সভাপতি জানান, উন্নয়ন হয়েছে, ওই এলাকার জন্য অনেক করা হয়েছে। কিন্তু তা-ও ভোট ওরা দেবে না। একথা শুনেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি। নির্দেশ দেন উন্নয়নের কাজ বন্ধ করে দেওয়ার। তাঁর সাফ কথা, কিছু পেতে হলে কিছু দিতে হবেই।

অন্যান্য বুথের সমস্যাও শোনেন তিনি। পিছিয়ে থাকার কারণ জানতে চান প্রত্যেকের কাছে। তবে ভোট দিলে তারপরই যে উন্নয়ণ মিলবে এদিন তা স্পষ্টভাবে বুঝিয়ে দিয়েছেন তৃণমূলের এই দাপুটে নেতা।বীরভূমের তৃণমূল সভাপতির এই মন্তব্যে দানা বেঁধেছে বিতর্ক।

এ প্রসঙ্গে বিজেপি নেতারা বলেন, “এতদিন কোনও কাজ করেনি বলেই তৃণমূলের উপর ক্ষুব্ধ মানুষ।” তৃণমূলকে কাঠগড়ায় তুলে রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “যেখানেই বিজেপি জিতেছে সেখানে উন্নয়ন হচ্ছে না।

অনুন্নয়নের রাজনীতি চলছে এখানে।” সবমিলিয়ে আক্রমণ পালটা আক্রমণে সরগরম রাজ্য-রাজনীতি। উল্লেখ্য, এর আগেও “ভোট নেই তো কাজ নেই”-এহেন নির্দেশ দিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন অনুব্রত মণ্ডল। ফের একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি।