ব্যাসনের মাধ্যমে মাত্র দু'সপ্তাহ আপনি পেতে পারেন উজ্জ্বল ত্বক-

ব্যাসনের মাধ্যমে মাত্র দু'সপ্তাহ আপনি পেতে পারেন উজ্জ্বল ত্বক-

আজ বাংলা: বাড়িতে আমরা প্রত্যেকেই অল্পবিস্তর রূপচর্চা করে থাকি। নামী দামী কোম্পানির বিভিন্ন প্রসাধনী দ্রব্য কিনে এনে ব্যবহার করা আমাদের অভ্যাস। অথচ হাতের কাছে এত উপকারী একটা ঘরোয়া উপায় থাকতে, তা খেয়াল করি না। রূপচর্চার ক্ষেত্রে আমাদের ঘরোয়া টোটকার জুড়ি মেলা ভার। বিভিন্ন সরঞ্জাম যেমন কাঁচা হলুদ, ময়দা, দুধ, ইত্যাদি ইত্যাদি আমরা ব্যবহার করে থাকি। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বেসন। আমরা জানি যে কোন ভাজাভুজি , চপ ইত্যাদি তৈরি করতে ব্যাসন প্রধান উপাদান। তবে এই বেসন যে আমাদের রূপচর্চার ক্ষেত্রে লাগতে পারে তা অনেকেই আমরা জানি। বেসনের তিনটি ফেসপ্যাক তৈরি করে আমরা কি করে নিজেদের উজ্জ্বল ও সতেজ রাখবো দেখে নেওয়া যাক।

দাগ ফাটা ত্বকে    সমপরিমাণ বেসন, হলুদ ও পরিমাণমতো জল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। শুধু ব্রণের স্থানে ব্যবহার করুন প্রতিদিন। ২০ মিনিট পর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণ কমে আসে। ভালো হয়ে গেলে আর ব্যবহারের প্রয়োজন নেই। বেসন, গোলাপজল ও লেবুর রস মিশিয়ে নিয়ে রোদে পোড়া ত্বকে লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট পর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এক দিন পর ব্যবহারে পোড়া দাগ কমে আসবে। বেসন পেস্টের সঙ্গে অ্যালোভেরার রস মিশিয়ে মেছতার ওপর লাগান।

২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এক দিন অন্তর এ প্যাক ব্যবহার করুন। দাগ কমে এলে ধীরে ধীরে প্যাক ব্যবহারও কমিয়ে আনুন। যেমন সপ্তাহে একবার, তারপর ১৫ দিনে একবার, তারপর মাসে একবার। যেকোনো ক্ষতের দাগ (যেমন ব্রণ,বসন্ত) দূর করতে বেসন ও কচি ডাবের জল একসঙ্গে মিশিয়ে দাগের ওপর লাগিয়ে রাখুন। ২০ মিনিট পর ঠান্ডা জলতে ধুয়ে ফেলুন। ধীরে ধীরে দাগ কমে এলে প্যাক ব্যবহার কমিয়ে আনুন মেছতার প্যাকের মতো নিয়মে। বেসন পেস্ট ত্বকের ফেটে যাওয়া অংশে লাগিয়ে রাখুন। ২০ মিনিট পর পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে এক দিন ব্যবহার করুন। বেসন, কাঠবাদাম তেলের সঙ্গে মিশিয়ে নিয়ে ত্বকে চক্রাকারে মালিশ করে ধুয়ে ফেলুন। সর্বোচ্চ ১০ মিনিট মালিশ করুন। এক দিন অন্তর এ প্যাক ব্যবহার করতে হবে। অবাঞ্ছিত লোম কমে আসবে।

১) দু'চামচ বেসনের সাথে এক চামচ কাঁচা দুধ ও এক চামচ লেবুর রস মিশিয়ে ১০ মিনিট মুখে রাখুন দিয়ে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন। অবশ্যই লেবুর রস সবার স্কিনে দেওয়া যায় না। তাই সরাসরি মুখে লাগানোর আগে হাতে লাগিয়ে দেখে নেবেন কোনরকম রিঅ্যাকশন হচ্ছে কিনা। 

২) দু'চামচ বেসনের সাথে দু'চামচ মধু, এক চিমটে হলুদ, ও একটু গোলাপজল ভালো করে মিশে আপনার মুখে লাগান। কিছুক্ষণ পর তার ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।

৩) স্ক্রাবার হিসেবে আপনি বেসনের ফেসপ্যাক মুখে লাগাতে পারেন। বেসনের সাথে চালের গুঁড়ো ও কাঁচা দুধ ভালো করে মিশিয়ে স্ক্রাবার হিসেবে আপনি ব্যবহার করতে পারেন।

আপনার দেইনি রূপচর্চার মধ্যে বেসন কে রাখলে দু'সপ্তাহের মধ্যে আপনি ত্বকের উজ্জ্বলতা অনুভব করবেন। তবে বেসন মেখে তার ঠান্ডা জলে ধোয়ার পর কোন সময় মুখে সাবান ব্যবহার করবেন না। সাবানে ক্ষার থাকার জন্য তা আমাদের স্কিনে ক্ষতি করে।