ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়তে পারে আপনার খাওয়ার অভ্যাস

ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়তে পারে আপনার খাওয়ার অভ্যাস

Cancer সুস্বাস্থ্যের প্রসঙ্গ এলেই চিকিত্‍সকরা বরাবর গুরুত্ব দেন খাদ্যাভ্যাসের উপর। শরীর সুস্থ রাখার অন্যতম দাওয়াই হল স্বাস্থ্যকর খাওয়াদাওয়ার অভ্যাস। বিশেষ করে, দিনের প্রথম খাবার কেমন হচ্ছে, তার ওপর অনেকটাই নির্ভর করে আমাদের শারীরিক অবস্থা। অনেকেই ব্রেকফাস্ট বা প্রাতরাশকে তেমন গুরুত্ব না দিয়ে খালি পেটেই কাজে বেড়িয়ে পড়েন।

কেউ আবার সব জেনেবুঝেও প্রাতরাশকে অবহেলা করেন। দিনের পর দিন এমন চলতে থাকলে দেখা দিতে পারে নানা শারীরিক সমস্যা। তাই শরীরের সামগ্রিক সুস্থতা বজায় রাখতে সকালের খাবার বাদ দিলে চলবে না। তবে শুধু খেলেই হল না, কী খাচ্ছেন সেটা দেখাও জরুরি। সকালে আমরা এমন অনেক ধরনের খাবার খাই, যাতে শরীরের লাভ তো হয়ই না, উল্টে ক্ষতি হয়।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, আল্ট্রা-প্রসেসড ফুড (UPFs) বেশি খেলে খাদ্যনালী-সহ উপরের অ্যারোডাইজেস্টিভ ট্র্যাক্টে ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে। এতে মাথা ও গলার ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকিও থাকে। ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশন এমন চার ধরনের অতি-প্রক্রিয়াজাত বা আল্ট্রা-প্রসেসড খাবারের উল্লেখ করেছে, যা সাধারণত আমরা রোজের ব্রেকফাস্টে খেয়ে থাকি এবং এর ফলে ক্যান্সারের সম্ভাবনা বাড়ে।

 রেড মিট এবং প্রক্রিয়াজাত মাংস ক্যান্সার কাউন্সিল NSW এর মতে, রেড মিট এবং প্রক্রিয়াজাত মাংস অত্যধিক খাওয়ার ফলে পেটের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে। প্রক্রিয়াজাত মাংসের নির্দিষ্ট কিছু রাসায়নিক থাকে, যা ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ায়। প্রিজার্ভ করা রেড মিট কার্সিনোজেনিক। গবেষণা বলছে, রেড মিট থেকে প্রতি বছর লাখ লাখ মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রক্রিয়াজাত মাংসকে ক্লাস ওয়ান কার্সিনোজেন হিসেবে চিহ্নিত করে। কার্সিনোজেন এর অর্থ বিষাক্ত রাসায়ানিক - যা ক্যান্সার ডেকে আনে।

 ব্রেকফাস্ট সিরিয়াল কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার উচ্চ তাপমাত্রায় রান্না করলে অ্যাক্রিলামাইড রাসায়নিক তৈরি হয়। এই অ্যাক্রিলামাইড শরীরে ক্যান্সার কোষ উত্‍পন্ন করে। প্যাকেটজাত ব্রেকফাস্ট সিরিয়ালেও এই বিষাক্ত রাসায়নিক তৈরি হয়। গবেষণা বলছে, পাউরুটি, আলু বা রাঙা আলু এমন ভাবে রান্না করা উচিত যাতে সোনালি-হলুদ রং ধরে। বেশি ভাজা বাদামি রঙের খাবারে এই ক্ষতিকর রাসায়নিক তৈরি হয়, যা শরীরে গেলে ক্যান্সার হতে পারে। ক্রাকার, কিছু বেবি ফুড, ব্রেড, বিস্কুট ও কফির ক্ষেত্রেও এই ঝুঁকি রয়েছে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

ব্রেড ইন্ডিয়ান সেন্টার ফর সায়েন্স অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের গবেষণায় দেখা গেছে, পাউরুটির ৩৮টি জনপ্রিয় ব্র্যান্ডের ৮৪ শতাংশই রাসায়নিকযুক্ত, যা আমাদের শরীরে ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে। পটাশিয়াম ব্রোমেট এবং পটাশিয়াম আয়োডেট বেশ কয়েক ধরনের ব্রেডের মধ্যে পাওয়া গিয়েছে। পটাশিয়াম ব্রোমেট হল ক্যাটাগরি 2B কার্সিনোজেন, যা ক্যান্সার সৃষ্টি করে। আর, পটাশিয়াম আয়োডেটের কারণে থাইরয়েড রোগ দেখা দেয়।

ফলের স্বাদযুক্ত দই কিছু ফ্লেভারের দইতে অ্যাসপার্টাম নামক কৃত্রিম মিষ্টি থাকে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) এই কৃত্রিম মিষ্টিকে কার্সিনোজেনিক বলে চিহ্নিত করেছে, যা ক্যানসারের কারণ। অর্থাত্‍ ক্যান্সারের মতো মারণ রোগের আশঙ্কা বাড়ে এই কৃত্রিম মিষ্টির ব্যবহারে। তবে এ ব্যাপারে আরও গবেষণা প্রয়োজন।

চিনি খাওয়ার অভ্যাস  ওজন বেড়ে যাওয়ার ভয়ে অনেকেই মিষ্টি এড়িয়ে চলেন। অথচ চায়ে এক চামচ চিনি না মেশালে চলে না। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, সরাসরি চিনি খাওয়ার এই অভ্যাস শরীরের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর। ২০১০ সালের একটি সমীক্ষা অনুযায়ী, সারা দিনে একবার হলেও চিনিযুক্ত পানীয় খাওয়ার অভ্যাস ডায়াবিটিসের ঝুঁকি প্রায় ২৬ শতাংশ বাড়িয়ে দিতে পারে। অ্যালকোহলের চেয়েও চিনি মেশানো কোনও পানীয় অনেক বেশি বিপজ্জনক।  চিনি ডায়াবিটিসের পাশাপাশি উচ্চ রক্তচাপ, দাঁতের ক্ষয়ের মতো সমস্যার সৃষ্টি করে।

সেই সঙ্গে স্থূলতা এমনকি ক্যানসারের ঝুঁকিও বাড়ায়। প্রতি মিলিলিটার চিনিযুক্ত পানীয় ক্যানসারের ঝুঁকি ১৮ শতাংশ বাড়িয়ে দেয়। চিনির কিছু কৃত্রিম বিকল্পও এখন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। চিনি থেকে দূরে থাকতে অনেকেরই রোজের ডায়েটে জায়গা করে নিয়েছে এই কৃত্রিম চিনির গুঁড়ো কিংবা ট্যাবলেট। চিকিৎসকরা কিন্তু অন্য কথা বলছেন। তাঁদের মতে, বাজারচলতি কৃত্রিম চিনিতে বিভিন্ন রাসায়নিক যৌগ থাকে। কৃত্রিম চিনির মিষ্টি ভাব আনতেই মূলত এগুলি ব্যবহার করা হয়।

কিন্তু এগুলি শরীরের পক্ষে মোটেই ভাল নয়। চিনির মতোই সমান ক্ষতিকর। হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকিও বাড়তে পারে এর ফলে। মিষ্টি খেতে ইচ্ছা করছে মানেই কৃত্রিম চিনি মিশিয়ে চা খেয়ে নিলেন, এমন করা কিন্তু ঠিক নয়।  চিনি বলে নয়, যে কোনও কৃত্রিম খাবারই স্বাস্থ্যকর নয়। নানা রকম অসুখের ঝুঁকি বাড়ে এর ফলে। অনেকেই আছেন রান্নাতেও কৃত্রিম চিনি মেশান। এই চিনি খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়বে না, ওজনও নিয়ন্ত্রণে থাকবে— অনেকেই এমন ধারণা পোষণ করেন। পুষ্টিবিদ থেকে চিকিৎসক, সকলেই বলছেন এই কৃত্রিম চিনিও শরীরের ভিতরে সমান ভাবে ক্ষতি করে। তাই চিনির বদলে কৃত্রিম কোনও চিনি বেছে নেওয়া কোনও বুদ্ধিমানের কাজ হবে না। 

দূষণ এড়িয়ে চলুন করোনা আমাদের মাস্ক পরার অভ্যাস করিয়েছে। করোনার দাপট কমতেই সেই অভ্যাস প্রায় ভুলতে বসেছি আমরা। কেবল করোনা থেকে বাঁচতেই নয়, বায়ুদূষণের হাত থেকে রক্ষা পেতেও রাস্তায় বেরোলে নিয়মিত মাস্ক পরুন। ধূমপানই নয় শুধু, ফুসফুসের ক্যানসারের অন্যতম কারণ কিন্তু দূষণ। তাই সুরক্ষিত থাকতে মাস্ক পরুন।

 ই-সিগারেট ও ধূমপান তামাকজাত দ্রব্যের বাজারে ই-সিগারেট এসে যাওয়ায় অনেকেই ধূমপানের সময় এটি ব্যবহার করেন। ভেবে থাকেন, এতে কম ক্ষতি হয়। চিকিৎসকদের মতে, এই ধরনের ই-সিগারেটেও সমান ক্ষতি হয়। সাধারণ বিড়ি-সিগারেট ও ই-সিগারেট— সব ক্ষেত্রেই শরীরে ঢুকে পড়ে তামাক ও কার্বন। ক্যানসার দানা বাঁধার সব রকম উপাদান এতে মজুত। তাই ক্যানসার থেকে রক্ষা পেতে সব রকম ধূমপানই বর্জন করতে হবে। তামকজাত পদার্থগুলি এড়িয়ে চলুন।

 গরম চা-কফি দিনের শুরুই হয় চা বা কফি দিয়ে? তা হোক, কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে খুব গরম চা পান করার অভ্যাসে যেন দাঁড়ি পড়ে। ‘ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অব ক্যানসার’-এ প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে বিজ্ঞানীদের দাবি, খাদ্যনালিতে ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা বহু গুণ বাড়িয়ে দিচ্ছে ফুটন্ত চা খাওয়ার প্রবণতা। মুখ, গলা ও খাদ্যনালিতে হওয়া ফুয়েল টিউমারই এই ধরনের ক্যানসারকে ডেকে আনে।

 প্লাস্টিকের ব্যবহার সাধারণ কোনও প্লাস্টিকের বোতলে গরম জল রাখলে বা প্লাস্টিকের পাত্রে মাইক্রোওয়েভে খাবার তৈরি করলে অথবা পাত্রগুলিকে ডিটারজেন্টে ধুলে বিসফেনল বা বিপিএ যৌগমুক্ত হয়। পরে খাবার ও পানীয়ের মধ্যে দিয়ে বিপিএ মানবদেহে প্রবেশ করতে পারে। বিপিএ-র জন্য স্তন ও প্রস্টেট ক্যানসারের মতো রোগ হতে পারে। তাই দৈনন্দিন জীবনে প্লাস্টিকের ব্যবহার এড়িয়ে চললেই ভাল। 

  এই আর্টিকেলে উল্লিখিত সমস্ত তথ্য পরামর্শস্বরূপ। কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে অবশ্যই চিকিত্‍সকের পরামর্শ নিন।

আরো পড়ুন      জীবনী  মন্দির দর্শন  ইতিহাস  ধর্ম  জেলা শহর   শেয়ার বাজার  কালীপূজা  যোগ ব্যায়াম  আজকের রাশিফল  পুজা পাঠ  দুর্গাপুজো ব্রত কথা   মিউচুয়াল ফান্ড  বিনিয়োগ  জ্যোতিষশাস্ত্র  টোটকা  লক্ষ্মী পূজা  ভ্রমণ  বার্ষিক রাশিফল  মাসিক রাশিফল  সাপ্তাহিক রাশিফল  আজ বিশেষ  রান্নাঘর  প্রাপ্তবয়স্ক  বাংলা পঞ্জিকা