মালদায় অভাবের তাড়নায় কোলের কন্যা সন্তানকে বিক্রি করার অভিযোগ এক দম্পতির বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত দম্পতি
অভিযুক্ত দম্পতি

দেবু সিংহ আজবাংলা মালদা অভাবের তাড়নায় কোলের কন্যা সন্তানকে বিক্রি করার অভিযোগ এক দম্পতির বিরুদ্ধে। এই কন্যা সন্তানকে কলকাতায় কোনোএক মহিলা উকিলের উকিলের কাছে বিক্রি করা হয়েছে বলে অভিযোগ। আবার কোন এক পুলিশের মারফত তাকে ওই উকিলের কাছে বিক্রি করা হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। পুলিশে খবর দেওয়া হলে পুলিশ দম্পতিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে এবং কন্যাসন্তানকে কিনে নেওয়া ওই উকিলকে ডেকে পাঠানো হয়েছে মালদায়। যদিও দম্পতির সাফাই বাড়িতে অসুস্থ থাকায় চিকিৎসার পয়সা ছিল না তাদের কাছে। তাই মাসির কাছে কলকাতায় মেয়েকে পাঠানো হয়েছে।জানা গেছে, বিক্রি হওয়া ওই কন্যা সন্তানের বাবা বিকাশ বিশ্বাস (৪০)। মা রুমকি বিশ্বাস। বিকাশ মজুরের কাজ করে সংসার চালান। অন্যদিকে, রুমকি পরিচারিকার কাজ করেন। তাদের দুই মেয়ে, বড় মেয়ে বছর দুয়েকের বীমা এবং ছোট মেয়ে নয় মাসের বীনা। পুরাতন মালদা ব্লকের সাহাপুর দুবাপাড়া এলাকায় ওই দম্পতি ভাড়া থাকেন। তাদের কাছে জানা গেছে কলকাতায় সোমা নামে কোনো এক মহিলার কাছে তাদের কন্যাসন্তানকে রাখা হয়েছে। একমাস আগে পাঠানো হয়েছে। এমনকি ওই দম্পতি উকিলের নাম বললেও পদবি বলতে পারেন নি। কিন্তু আবার মাসির পরিচয় দিয়েছেন, এখানেই সন্দেহ দানা বেঁধেছে মেয়েটির খোঁজে যাওয়া আশা কর্মীদের এবং আশা কর্মীদের যুক্তিসংগত ব্যাখ্যা ওই দম্পতি দিতে পারেননি বলে আশা কর্মীর পুলিশে খবর দেন। অভিযোগ উঠেছে, মেয়েকে বিক্রির টাকায় তারা বাড়ি ঘর নির্মাণের কাজ করছিলেন। এখন কত টাকায় বিক্রি করেছেন সঠিক কথা ওই দম্পতি বলতে চাননি। বিক্রি হওয়া কন্যা সন্তানের বাবা বিকাশ উল্টে বলেন, আমরা মেয়েটিকে তার মাসির কাছে রেখেছি । আমাদের সংসারে খুবই অভাব। চিকিৎসা করার পয়সা নেই। তাই মেয়েটিকে সেখানে রাখা যাতে ভালোভাবে মানুষ হতে পারে। এর বেশি কিছু আর নয়। এদিকে ৮ মাসের কন্যা সন্তানকে কিভাবে মা অন্যত্র রাখতে পারেন সেখানেই প্রশ্ন দানা বেঁধেছে।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!