ধান চাষে বিপুল আর্থিক লোকসান হওয়া বিষ খেয়ে আত্মঘাতী হলেন এক কৃষক।

দেবু সিংহ আজবাংলা মালদা,    ধান চাষের বিপুল আর্থিক লোকসানে ঘটনায় মানসিক অবসাদগ্রস্ত হয়ে বিষ খেয়ে আত্মঘাতী হলেন এক চাষি। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে গাজোল থানার রানীগঞ্জ গ্রাম পঞ্চায়েতের সনখৈর গ্রামে। আদিবাসী ওই ধান চাষির মৃত্যুর ঘটনায় পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে মৃত ধান চাষির নাম মঙ্গল হেমব্রম (৫৫)। সনখৈর গ্রামে ওই চাষির বাড়ী।  কৃষি কাজ করার পাশাপাশি ওই ব্যক্তি ভিন রাজ্যে দিনমজুরের কাজ করতেন। রবিবার রাতে কীটনাশক খাওয়ার পর অচৈতন্য অবস্থায় মঙ্গল হেমব্রমকে উদ্ধার করে তার পরিবারের লোকেরা । এরপর তাকে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় । সেখানে চিকিৎসকেরা ওই ব্যক্তির মৃত্যুর কথা জানিয়ে দেন। মৃত ওই ব্যক্তির ভাই বল হেমব্রম জানিয়েছেন,  গ্রামের বাড়ির পাশে দাদার দুই বিঘা জমি রয়েছে। দু'মাস আগে দাদা দিল্লি থেকে শ্রমিকের কাজ করে ফিরে এসেছিলেন। এরপর এলাকায় মহাজনদের কাছ থেকে কয়েক হাজার টাকা ধার নিয়ে স্বর্ণা ধান চাষ শুরু করেছিলেন। কয়েকদিন ধরে জমির ধান গাছে ক্রমাগত ধসা রোগের আক্রমণ শুরু হয়। তাতেই ধান গাছগুলি মরে যাচ্ছিল। এতেই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন দাদা মঙ্গল ।মহাজনদের টাকা কিভাবে শোধ করবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলেন তিনি। এরপর  বাড়িতে রাখা কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যা করেন দাদা মঙ্গল হেমব্রম । তার পরিবারের স্ত্রী অনেক দিন আগে মারা গিয়েছে । বাড়িতে তার দুই ছেলে মেয়ে রয়েছে।  তারা এখন অসহায় পড়েছে। এদিকে এই আত্মহত্যার বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে গাজোল থানার পুলিশ ।