বন্যা কেড়েছে মাকে, কাজিরাঙ্গায় একা দিন কাটছে ছোট্ট শাবকের

বন্যা কেড়েছে মাকে, কাজিরাঙ্গায় একা দিন কাটছে ছোট্ট শাবকের

আজ বাংলা: একদিকে করোনা অন্যদিকে ভয়াবহ বন্যা...এই দুইয়ের মিশেলে জর্জরিত গোটা অসম। সময় যত এগোচ্ছে বন্যা পরিস্থিতি ততই ভয়ানক হয়ে উঠছে 12। পথঘাট তেমনই জলমগ্ন কাজিরাঙা অভয়ারণ্য। বিঘ্নিত বন্য জীবন। এ বার বন্যার জেরে মায়ের থেকে আলাদা হয়ে যাওয়া এক গন্ডার শাবকের ছবি দেখে মন খারাপ গোটা নেট দুনিয়ার৷

ইতিমধ্যেই ওই শাবকটির একটি ভিডিও যথেষ্ট ভাইরাল হয়েছে৷ তবে আশার কথা একটাই, মায়ের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়লেও বনকর্মীদের তৎপরতায় শাবকটিকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে৷

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার কাজিরাঙা আগরতলি রেঞ্জে ওই মাদি গন্ডার শাবকটি মায়ের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে৷ যেহেতু শাবকটির মায়ের খোঁজ পাওয়া যায়নি, তাই সেটিকে উদ্ধার করে সিডব্লিউসি-র রেসকিউ সেন্টারে রাখা হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার ফের কাজিরাঙা কর্তৃপক্ষ ট্যুইট করে জানায়, উদ্ধার হওয়া ওই গন্ডার শাবকটি এখন ভাল আছে৷

বন্যার জোরে আসামে ৩৩ টি জেলায় জলমগ্ন ইতিমধ্যে ৭১ জন প্রাণ হারিয়েছেন এবং কমপক্ষে ৭৬ পশুপাখি মৃত্যু হয়েছে এই ভয়াবহ বন্যার জেরে। অসমের মোট ৩৬,৩২০ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ 12ের তরফের ৬২৯টি ত্রাণশিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন। যদিও কিছু নদীতে জল নামতে শুরু করেছে তবে ব্রহ্মপুত্রের জল এখনও বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে বেশকিছু জেলায়। এনডিআরএফ এবং এসডিআরএফের সাহায্যে বুধবার ৩,৯৯১ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। বন্যার জলের স্রোতে এখনও অবধি ১২৯টি ব্রিজ এবং কালভার্ত এবং ১৩৮৫টি রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

২০ হাজারের বেশি মানুষকে উদ্ধার করে ত্রাণ শিবিরে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। জোড়হাট জেলায় টেওক রাজাবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ে খোলা অস্থায়ী ত্রাণ শিবির পরিদর্শন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল। বন্যা দুর্গতদের সঙ্গে কথা বলার সময়ে তিনি সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন।