সম্পত্তি হাতিয়ে নিয়ে ৮০ ঊর্ধ্ব বাবাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ ছেলের বিরুদ্ধে।

দেবু সিংহ আজবাংলা মালদা ,   সম্পত্তি হাতিয়ে নিয়ে ৮০ ঊর্ধ্ব বয়সী বাবাকে বাড়ি থেকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে। অসহায় ওই বৃদ্ধ এই ঘটনার বিষয়ে তার ছেলের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার বাজারমোড় এলাকায়।  পরনে ধুতি,  পাঞ্জাবি আর হাতে লাঠি নিয়ে অসহায় ওই বৃদ্ধ এখন এখানে সেখানে আশ্রয়ের জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছেন । পাশাপাশি পুলিশের কাছে ওই বৃদ্ধ নিজের বাড়িতে আশ্রয় পাওয়ার বিষয়ে আর্জি জানিয়েছেন। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,  হরিশ্চন্দ্রপুর ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের ডেলিবাজার মোড় এলাকার বাসিন্দা শান্তলাল ঘোষ (৮০)।  পেশায় দুধ বিক্রেতা ছিলেন ওই বৃদ্ধ । এখন তিনি বয়সের ভারে কাজ করতে পারেন না । কয়েকদিন আগেই তাঁকে তার বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছেলে পবন কুমার ঘোষের বিরুদ্ধে । ওই বৃদ্ধের বাড়ি ও জমি জায়গা যতটা ছিল কৌশলে সেগুলি নিজের নামে করে নিয়েছে অভিযুক্ত ছেলে বলে অভিযোগ। এরপর বৃদ্ধ বাবাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।অসহায় বৃদ্ধ শান্তলাল দাস বলেন,  বয়সের ভারে এখন আর কাজ করতে পারি না। ভেবেছিলাম ছেলে আমাকে বুড়ো বয়সে দেখবে । কিন্তু তা আর হলো না।  যাকে কোলে পিঠে করে মানুষ করলাম,  সেই সন্তানই আজ আমাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিলো। জোর করে আমার সব সম্পত্তি ছেলে নিজের নামে করে নিয়েছে।  আমি এখন বেরোজগার । তাই আমাকে খেতেও দিত না। অত্যাচার চালাত। এরপর বাড়ি থেকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে তাড়িয়ে দিয়েছে ছেলে। এই অবস্থায় কোথায় যাবো, কি করবো বুঝে উঠতে পারছি না।শান্তলালবাবু আরও বলেন,  বুড়ো বয়সে চোখে ঠিকমতো দেখতে পায় না । লোকের বাড়ির বারান্দায় আশ্রয় নিতে হচ্ছে । পুরো বিষয়টি নিয়ে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশের কাছে সুবিচারের পাওয়ার আশায় অভিযোগ জানিয়েছে।হরিশ্চন্দ্রপুর ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান শেফালী দাস জানিয়েছেন,  বৃদ্ধ বাবাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার কথা শুনেছি। ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। পুলিশ যাতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয় সেটাই আশা করবো। তবে ওই বৃদ্ধকে বাড়িতে ফেরানোর ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।যদিও এব্যাপারে অভিযুক্ত ছেলে পবন কুমার ঘোষের কোনও প্রতিক্রিয়া মিলে নি হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয় কুমার দাস জানিয়েছেন,  পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখার পাশাপাশি ওই বৃদ্ধকে তার বাড়িতে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।