ফের বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার পুরুলিয়া, খুন করে ঝুলিয়ে দেবার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ
বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ

নিজস্ব সংবাদদাতা আজবাংলা পুরুলিয়া   বৃহস্পতিবার সকালে আড়শা থানার অন্তর্গত সেনাবোনা গ্রাম থেকে এক কিলোমিটার দূরে একটি জঙ্গলে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় বিজেপি কর্মীর দেহ। মৃতের নাম শিশুপাল সহিস, বয়স ২২।জানা গিয়েছে, মৃতের বাড়ি আড়শার সেনাবোনা গ্রামে। তাঁর বাবা যাদব সহিস আড়শা ব্লকের সিরকাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য। ভোটের মরশুমে তাঁর সন্তানের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনা ঘিরে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে জেলার রাজনীতি। ঘটনার পিছনে শাসকদলের যোগ রয়েছে বলে অভিযোগ বিজেপির। তবে এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। বিজেপির তরফে জানান হয়েছে, গত মঙ্গলবার তাঁদের কর্মী শিশুপাল পুরুলিয়া কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতোর রোড শো-তে হেঁটেছিলেন। ফলে শাসকদলের রোষের মুখে পড়েন তিনি। পুরুলিয়ার বিজেপি সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী বলেন, ‘পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে থেকেই শাসকদল এই জেলায় খুনের রাজনীতি শুরু করেছে। এই ঘটনা বলরামপুরের তিনটি ঘটনার  মতো বলে আমাদের সন্দেহ। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের জন্য আমরা সিবিআই চাইছি।’ যদিও বিজেপির এই অভিযোগকে অস্বীকার করেছে পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। পুরুলিয়া জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতো বলেন, ‘পঞ্চায়েত নির্বাচনে কয়েকটি আসন জেতার পরেই তাঁরা এই ধরণের রাজনীতি শুরু করেছে। কিন্তু এখন তাঁদের পায়ের তলা থেকে মাটি সরে গিয়েছে। ফলে ভোট আসতেই নানা উলটপালটা কথা বলছে ওরা।পুরুলিয়ার পুলিশ সুপার আকাশ মাঘাড়িয়া বলেন, ‘ঘটনার তদন্ত চলছে।’ পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গত বুধবার বিকেল থেকেই নিখোঁজ ছিলেন শিশুপাল। বৃহস্পতিবার ভোরে তাঁর পরিবারের সদস্যরা জঙ্গলের মধ্যে একটি শিশু গাছে শিশুপালের ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের পরও বিজেপির দুই কর্মীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছিল পুরুলিয়ার বলরামপুরে। এবং ওই সময় বিজেপির এক আদিবাসী নেতাও খুন হন বলরামপুরে। এই তিনটি ঘটনাতেই সিবিআই তদন্তের দাবিতে এখনও সরব বিজেপি নেতৃত্ব। আড়শার এই ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনাতেও ফের একবার সিবিআই তদন্তের দাবি উঠেছে। দেহ আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন গ্রামবাসীরা পুলিশের ভূমিকা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেন তাঁরা