মর্মান্তিক ঘটনার সাক্ষী হল আলিপুরদুয়ার,একই পরিবারে তিনজনের রহস্য মৃত্যু

আজবাংলা     আলিপুরদুয়ার     লকডাউনের মধ্যে স্ত্রী, সন্তানকে নিয়ে নিজে আত্নঘাতী এক বিমা কোম্পানির এজেন্ট। মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুরদুয়ার শহরের নিউটাউন এলাকায়। ওই বিমা এজেন্টের নাম বিশ্বজিৎ বোস (৪২)। তাঁকে তাঁর বাড়ির একটি ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। ঘর থেকে তাঁর স্ত্রী ও ছেলের দেহও উদ্ধার হয়েছে। তাঁর স্ত্রী শেলী বোস (৩৫) এবং পুত্র বিরাট বোস (১৫)-কে খুন করে বিশ্বজিৎবাবু আত্মঘাতী হন বলে অনুমান করা হচ্ছে। স্থানীয়দের থেকে জানা গেছে, বছর ২ আগে পরিবার সমেত আলিপুরদুয়ার শহরের নিউটাউন এলাকায় একটি  ভাড়া বাড়িতে বসবাস করতেন।তাদের একমাত্র সন্তান বিরাট পড়াশুনাতে যথেষ্টই ভালো ছিল। সে শহরেরই একটি বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণিতে পড়াশুনা করত। এমন মর্মান্তিক ঘটনা যা আগে কোনওদিন আলিপুরদুয়ারে ঘটেনি তা যে ঘটাতে পারে তা আগে থেকে কেউ আঁচও করতে পারেনি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ঢিলছোড়া দূরত্বে থাকা আলিপুরদুয়ার থানা থেকে পুলিস এসে তিনটি দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে গেছে। তাঁর আদি বাড়ি কোচবিহারের রবীন্দ্রনগর এলাকায়। তিনি একটি বিমা কোম্পানির এজেন্ট। ওই ব্যক্তি একটি সুইসাইড নোট রেখে যান বলে জানা গিয়েছে। তবে তাতে কি লেখা রয়েছে তা জানা যায়নি। বিষয়টি নিয়ে আলিপুরদুয়ার শহরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। গোটা বিষয়টি নিয়ে আলিপুরদুয়ারের পুলিশ জানিয়েছে, শহরের নিউটাউন এলাকায় একটি আত্মঘাতী হবার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছেন।