হাসপাতালে বেডের ব্যবস্থায় সাহায্যের হাত সাংসদ, অভিনেতা দেবের

হাসপাতালে বেডের ব্যবস্থায় সাহায্যের হাত সাংসদ, অভিনেতা দেবের
আজবাংলা  শ্রমিক ও পরিযায়ীদের তাদের নিজ নিজ ঘরে ফিরিয়ে অনেক আগেই মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছিলেন। বরাবর দুস্থদের সাহায্যেও হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি সাংসদ ও অভিনেতা দেব। কিছুদিন আগেই বেলঘড়িয়ার এক বৃদ্ধ মাস্ক বিক্রেতার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এবার আরও এক করোনার রোগী ভরতি হলেন হাসপাতালে সাংসদ দেবের হাত ধরে। এই করোনার কারনে হাসপাতালে বেড পাওয়া একপ্রকার চিন্তার কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন যেভাবে বাড়ছে তাতে হাসপাতালে আশ্রয় পেতে রোগীদের নাকাল হতে হচ্ছে এবং আক্রান্তের পরিবারকে নানা রকম অশান্তি ভোগ করতে  হচ্ছে। বহুদিন ধরেই হাসপাতাল থেকে রোগীদের ফিরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এমন এক পরিস্থিতির মুখে পরতে হয়েছিলেন যাদবপুরের একজনকে। সেই খবর নজরে পড়তেই সাথে সাথে সহযোগিতার হাত বাড়ান সাংসদ দীপক অধিকারী। যাদবপুরের শ্যামাপল্লীর থাকেন, বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। তার করোনার রিপোর্ট পজিটিভ আসে সোমবার। অনেক ঘুরেও ভরতি হতে পারেননি। ওদিকে বাড়িতে থেকে থেকে রোগীর অবস্থা আরও শোচনীয় হয়। হাসপাতালের কর্তৃপক্ষরা বলেছেন, হাসপাতালে বেড নেই। ওদিকে অঞ্চলের কোভিড আক্রান্ত ব্যক্তির পরিবারের বক্তব্য, মেডিক্যাল কলেজে বেড রয়েছে। কিন্তু তারা জানিয়েছে, 1কলকাতা দপ্তর থেকে ফোন না এলে ভরতি নেওয়া যাবে না। এই গোটা ঘটনাটি জানিয়ে এক ব্যক্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন। পোস্টটি দেবের চোখে পরতেই ব্যবস্থা করেন। এরপর দেবের ব্যক্তিগত সচিব তাদের ফোন করে ডিটেলস নেন। তারপর 1কলকাতা দপ্তরের সঙ্গে কথা বলে হাসপাতালে বেডের ব্যবস্থা হয়। সাংসদ দেবের বক্তব্য, “দিনের শেষে আমরা সকলেই এক পরিস্থিতির শিকার। তাই আমি সকলের কাছে অনুরোধ করছি যে এই কঠিন সময়ে যেন সবার পাশে দাঁড়ান তারা। যতটুকুই সামর্থ্য থাকুক না কেন, দয়া করে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। ভুলে যাবেন না, রাস্তায় পড়ে থাকা কোভিড রোগী কিন্তু কাল আপনার স্বজনও হতে পারেন। তাই অনুরোধ করব নিজের সাধ্যমতো সাহায্য করুন।”