আলিপুরদুয়ার বাসীর জন্য আরও একটি কোভিড হাসপাতাল

আজবাংলা    আলিপুরদুয়ার:    লকডাউনের শুরু থেকে গ্রীন জোনে থাকা আলিপুরদুয়ারে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। পরিযায়ী শ্রমিক ও রাজ্যের বাইরে থেকে আসা জেলার বাসীন্দাদের হাত ধরে করোনা প্রবেশ করছে জেলায়। প্রবেশ করার পর এখন শুরু করেছে পসার জমানো। পার্শ্ব‌বর্তী জেলা কোচবিহারে হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। আর এই সমস্ত জেলার করোনা আক্রান্তদের চিকিত্‍সার জন্য পাঠাতে হয় শিলিগুড়ির কোভিড হাসপাতলে। কিন্তু যে হারে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তাতে আর কিছুদিনের মধ্যে পরিকাঠামোর অপ্রতুলতা দেখা দিতে পারে সেখানেও। তাই সমস্যা গম্ভীর আকার ধারণ করার আগেই প্রস্তুত আলিপুরদুয়ার জেলা স্বাস্থ্য দফতর। রবিবার একটি নোটিশের মাধ্যমে জেলার ভাটিবাড়ি গ্রামীণ হাসপাতালকে সোমবার সকাল ৯ টা থেকে কোভিড-১৯ হাসপাতালের রূপান্তর হওয়ার ঘোষণা করেন হাসপাতাল সুপার এবং সেই নোটিশে কর্তব্যরত চিকিত্‍সক ও স্বাস্থ্য কর্মীদের আরও বলা হয় যে রবিবার বিকেল ৫ টা থেকে অন্য কোন রুগী ভর্তি না করতে। এই নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আলিপুরদুয়ার জেলার তোপসিখাতাতে অবস্থিত আয়ুষ হাসপাতালকে ইতিমধ্যেই কিন্তু প্রি-কোভিড হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে । এখন দেখার এই যে পরিকাঠামোহীন এই গ্রামীণ হাসপাতালকে কতো তাড়াতাড়ি করোনা চিকিত্‍সার জন্য উপযুক্ত করে তোলা হয়।