হাঁটুর ব্যথায় প্রাণ ওষ্ঠাগত? তাহলে জেনে নিন দূর করার উপায়

হাঁটুর ব্যথায় প্রাণ ওষ্ঠাগত? তাহলে জেনে নিন দূর করার উপায়

আজ বাংলা: দীর্ঘদিন ধরে হাঁটু ব্যথার সমস্যা ভুগছেন? তাহলে আপনার জন্য রইল আজ একটা উপায়। অনেকেই শুনেছি রোগা হওয়ার জন্য ডায়েটে অ্যাপল সিডার ভিনিগার  থাকা নাকি আবশ্যক। মেদ ঝরাতে এই অ্যাসিড নাকি অভ্রান্ত। সকালে ঈষদুষ্ণ জলে এক চামচ অ্যাপল সিডার ভিনিগারের যা গুণ, তা অনেক ডায়েট ফুডেরই নেই। 

কিন্তু আপনি জানেন কি, ব্যথা-বেদনার অব্যর্থ ওষুধও এই ভিনিগার? হ্যাঁ বিশেষ করে হাঁটুর ব্যথা উপশমে এর উপকারিতা অনেক। এমনই দাওয়াইয়ের কথা শোনাচ্ছেন চিকিৎসকদের একাংশ। কীভাবে হাঁটু যন্ত্রণা নিমেষে উধাও করে দেয় অ্যাপল সিডার ভিনিগার, জেনে নিন। অ্যাপল সিডার ভিনিগার সম্পূর্ণ এক প্রাকৃতিক উপাদান।

ফলে তা যে কোনও চিকিৎসায় ওষুধের মতো ব্যবহার করলে কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হবে না। ভিনিগার মানেই মূলত অ্যাসিড। আপেল থেকে উৎপাদিত এই অ্যাসিড হাঁটু কিংবা শরীরের যে কোনও অস্থিসন্ধিতে জমে থাকা টক্সিন বের করে দিতে সাহায্য করে। সেইসঙ্গে শরীরে থাকা খনিজগুলির কার্যকারিতা বাড়িয়ে তোলে।

এছাড়া শরীরে ভিতরে গিয়ে তা তেলের মতো কাজ করে, যার জেরে যন্ত্রণার উপশম হয়। বিভিন্নভাবে আপনি এর ব্যবহার করতে পারেন। সেসব উপায়ও বাতলে দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। জেনে নিন কীভাবে এর প্রয়োগ করবেন...

দু’কাপ জলে মিশিয়ে নিন দু’চামচ ভিনিগার। এরপর দিনে বারবার সেই জল খান। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে একেবারে ভিনিগার মেশানো জলও খেতে পারেন। কয়েকদিন পর লক্ষ্য করবেন, হাঁটুর ব্যথা কিছুটা হলেও কমেছে।

স্নানের সময় বাথটবের ঈষদুষ্ণ জলে মিশিয়ে নিন দু’কাপ অ্যাপল সিডার ভিনিগার। দিনের ৩০ মিনিট সেই জলে স্নান করুন। স্নান না করলেও হাঁটুর যে অংশে ব্যথা, তার উপর এই জল দিয়ে অন্তত আধঘণ্টা শুশ্রূষা করুন। হাতেনাতে ফল পাবেনই।

নারকেল তেল কিংবা অলিভ অয়েলের সঙ্গে ১:১ অনুপাতে মিশিয়ে নিন অ্যাপল সিডার ভিনিগার। এরপর হাঁটুর যে অংশে ব্যথা, তাতে ভাল করে মালিশ করুন। দিনে একবার বা দু’বার এভাবে মালিশ করলে খুব সহজে চটজলদি আরাম পাবেন।