ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তি আইয়ুব বাচ্চুকে বিদায় জানালো চট্টগ্রাম

Ayub Bachchu cited ChittagongAyub Bachchu cited Chittagong
আইয়ুব বাচ্চুকে বিদায় জানালো চট্টগ্রাম

আজবাংলা চট্টগ্রাম   শনিবার বিকেলে জানাজায় অংশ নিতে সাধারণ মানুষের ঢল নামে জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদ প্রাঙ্গণে। ফুলে আর ভালোবাসায় নিজেদের প্রিয় সন্তানকে শেষ বিদায় জানাতে এভাবেই জড়ো হয় চট্টগ্রামের সর্বস্তরের মানুষ। কথা আর সুরের মায়াবি মোহে গত তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে আইয়ুব বাচ্চু কাছে টেনেছেন স্রোতাদের, ভাসিয়েছেন অনুভূতির বহুবর্ণিল সাগরে। মৃত্যুর পরও সেই একই জাদুতে টেনেছেন ভক্তদের। সব স্রোতের গন্তব্য তাই সুর স্রষ্টার পানে, শুধু একবার চোখের দেখা দেখতে। আসরের নামাজের পর তাঁর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে বেলা তিনটা থেকে মসজিদ প্রাঙ্গণে রাখা আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান তাঁর ভক্ত আর শুভানুধ্যায়ীরা। ফুলে ফুলে ঢেকে যায় কফিনটি। ভক্ত, সাধারণ মানুষ, রাজনীতিবিদ, শিল্পী, সাহিত্যিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সেখানে ভিড় করেন। শনিবার দুপুর থেকে হাজার হাজার মানুষের শোক মিছিলের গন্তব্যে পরিণত হয় নগরীর জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ মাঠ। গিটারের জাদুকরকে’ গিটার আকৃতির ফুলের তোড়ায় বিদায় জানিয়েছে ভক্তরা।

Ayub Bachchu
আইয়ুব বাচ্চু

রিদম মিউজিক্যাল শপ ও নোঙর বাড়ি নামের দুটি প্রতিষ্ঠান থেকে ফুলে তৈরি গিটার দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয় আইয়ুব বাচ্চুকে। ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, সোলস, চিটাগাং মিউজিক্যাল ব্যান্ড অ্যাসোসিয়েশনসহ শতাধিক সংগঠন। ১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট চট্টগ্রামে জন্ম নেওয়া আইয়ুব বাচ্চুর শৈশব-কৈশোরের অনেকটা সময় কাটে এই চট্টগ্রাম শহরে। সকালে ঢাকা থেকে একটি বিমানযোগে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। সেখান থেকে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় পূর্ব মাদারবাড়িতে আইয়ুব বাচ্চুর নানাবাড়িতে। সেখানেও স্বজন ও ভক্তরা ভিড় করেন। এরপর মাদারবাড়ি থেকে জানাজার জন্য মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদে। জানাজা শেষে নগরের চৈতন্য গলি কবরস্থানে মায়ের পাশে তাঁকে সমাহিত করা হয়।