ত্রিপুরায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে তৃণমূলকে হারিয়ে দিল বিজেপি

বিজেপি
বিজেপি

আজয় মণ্ডল আজবাংলা আগরতলা ত্রিপুরায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যের বিরোধী সিপিএম এবং কংগ্রেস বিজেপির বিরুদ্ধে বড় মাত্রায় সন্ত্রাসের অভিযোগ করেছে। সেই জন্যই তারা প্রার্থী দিতে পারেনি বলে দাবি করেছে সিপিএম ও কংগ্রেস। অন্যদিকে বিজেপি এই অভিযোগ উড়িয়ে দাবি করেছে, বিরোধী কোনও প্রার্থী পায়নি। কেননা খারাপ শাসনের জন্য মানুষ তাদের বর্জন করেছে বলে দাবি করেছে বিজেপি।২০১৮-য় পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৩৪ শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছিল তৃণমূল। সেই সময় তৃণমূলে বিরুদ্ধে গণতন্ত্রকে হত্যা করার অভিযোগ করেছিল বিজেপি। তৃণমূল দাবি করেছিল উন্নয়নের জোয়ারে প্রার্থী খুঁজে পায়নি বিরোধীরা। এবার ত্রিপুরায় সেই প্রার্থী খুঁজে না পাওয়ার দাবি করল বিজেপি। ত্রিপুরায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৬৬৪৬ টি পঞ্চায়েত আসনের জন্য ১ থেকে ৮ জুনের মধ্যে মনোনয়ন জমা নেওয়া হয়। ৬১২৭ জন বিজেপি প্রার্থী ৬১১১ টি গ্রাম পঞ্চায়েত আসনের জন্য মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। কংগ্রেসের ৭২৭ জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছে। সিপিএম-এর ৪০৮ জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছে। আইপিএফটি মনোনয়ন জমা দিয়েছে ৪৮ টি আসনের জন্য। নির্দলীয়রা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ১৭৪ টি আসনে।পঞ্চায়েত সমিতিতে ৪১৯টির মধ্যে সবকটিতেই বিজেপি প্রার্থী দিয়েছে। সিপিএম প্রার্থী দিয়েছে ৯৩ টি আসনে, কংগ্রেস প্রার্থী দিয়েছে ৭৪ টি আসনে এবং আইপিএফটি প্রার্থী দিয়েছে ৯২ টি আসনে। অন্যদিকে নির্দলীয়রা প্রার্থী দিয়েছে ১৫ টি আসনে।জেলা পরিষদের ১১৬ টি আসনের মধ্যে সবকটিতেই প্রার্থী দিয়েছে বিজেপি। সিপিএম, কংগ্রেস, আইপিএফটি এবং নির্দলীয়রা প্রার্থী দিয়েছে যথাক্রমে ৯৩, ৮১, ৯ ও ৭ টি আসনে।রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট হওয়ার কথা ২৭ জুলাই।ত্রিপুরায় বিরোধী সিপিএম, কংগ্রেস, জোট সঙ্গী আইপিএফটি সব মিলিয়ে ১৮ শতাংশ আসনে প্রার্থী দিতে দিয়েছে ত্রিপুরার বিজেপি প্রশাসন। তবে ২০১৮-য় পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৩৪ শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের রেকর্ডকে হারিয়ে একেবারে ৮২ শতংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়ে নুতুন রেকর্ড গড়লেন ত্রিপুরা বিজেপি।

এমন সমস্ত আপডেট পেতে লাইক দিন!