মালদায় এসে চায়'পে চর্চার আড্ডা যোগ দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ

দেবু সিংহ   আজবাংলা   মালদা,    প্রতিটা নির্বাচনে পুলিশ গুন্ডা দিয়ে হিংসার পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে। শান্তিপূর্ণভাবে ভোট প্রক্রিয়া করতে দেয়নি তৃণমূল। তাও আমরা ভালো ফল করেছি। জিএসটি চালু হওয়ার সময়ও দিদিমণি (মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি) বলেছিলেন এত লোক মারা গিয়েছে। দিদির এরকম ঔ কুশাসনের জন্য মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। আর তার দোষ এড়াতে এরকম কথা বলছেন। সোমবার মালদায় এসে চায়'পে চর্চায় আড্ডা দেওয়ার মুহূর্তেই তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির বিরুদ্ধে  কড়া সমালোচনা করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন সাতসকালেই কুয়াশা ঘেরা ঠান্ডার মধ্যে পুরাতন মালদার বুলবুলি মোড় এলাকায় চায়'পে চর্চায় সামিল হন দিলীপ ঘোষ। তার সঙ্গে ছিলেন বিজেপি রাজ্যের সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার। ছিলেন বিজিবি জেলা সভাপতি গোবিন্দ মন্ডল সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। পুরাতন মালদা পুরসভা এলাকার বুলবুলি মোড়ের একটি চায়ের দোকানে বেশ খানিকক্ষণ আড্ডা দেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কথা বলেন সাধারণ মানুষের সঙ্গে। অভিনন্দন যাত্রা এবং জনসংযোগ বাড়ানোর ক্ষেত্রে ওই এলাকার বেশ কিছু দোকানে সাত সকালে দলীয় প্রচারপত্র বিলি করা হয়। এরপর হঠাৎই জনৈক এক সাধারণ ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে মিষ্টি মুখের জন্য হাজির হন বিজেপির জেলা সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁকে দেখে হতবাক হয়ে পড়েন অঞ্চলপাড়া এলাকার বাসিন্দা কৃষ্ণ আগারওয়ালা। তিনি দীলিপবাবু সহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের মিষ্টিমুখ করান। এদিন চায়ের আড্ডায় সাংবাদিকদের খোলামেলা আলোচনায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে হিংসা অত্যাচার করেছে শাসক দল তৃণমূল। পুলিশ গুন্ডা দিয়ে ভোট হয়েছে। তার মধ্যেও বিজেপির বিপুল জয় এসেছে । সামনে পুরসভা ভোট। তাই এবারও মানুষ বিজেপিকে দুহাত তুলে সমর্থন করবে। আমরা বলেছিলাম লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের ৮টি'র মধ্যে ৮টি আসন আমরা পাবো। যদিও সেখানে ৭ টি আসন পেয়েছি । মাত্র সাড়ে ৬ হাজার ভোটে দক্ষিণ মালদা লোকসভা আসন টি বিজেপির হাতছাড়া হয়েছে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ আরো বলেন,  বিভিন্ন জনসমাবেশের ক্ষেত্রে অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। আইন ভাঙতে বাধ্য করা হচ্ছে। তৃণমূল বুঝে গিয়েছে যে এবারে তাদের হার নিশ্চিত। তাই এরকম ভাবেই বিজেপিকে ঠেকানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আসন্ন পুরসভা ভোটে বিজেপি বিপুলভাবে জয়লাভ করবে।দিলীপবাবু বলেন,  আমরা চাই এরাজ্যে স্বচ্ছ প্রশাসন দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন এবং গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হোক । তার জন্যই মানুষের দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছি। শুধু চায়ের আড্ডায় নয়, জনসংযোগ বাড়ানোর ক্ষেত্রে জেলা নেতৃত্ব মানুষের দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছেন। গ্রামীণ এলাকায় বুথ ভিত্তিক বৈঠক করা হচ্ছে। মানুষের সমস্যার কথা শোনা হচ্ছে। সাংগঠনিক স্তরে দলীয় নেতাকর্মীরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সমাধানের চেষ্টা করছেন। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এদিন এনআরসি প্রসঙ্গে বলেন, বউয়ের সঙ্গে কেউ ঝগড়া করে যদি সুসাইড করছেন তাতেও দোষ দেওয়া হচ্ছে আধার কার্ডের। এনআরসি নিয়ে দিদির কুশাসনের জন্য পশ্চিমবঙ্গের মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। আর নিজেদের দায় এড়াতেই অদ্ভুতভাবে এনআরসি নিয়ে বিভ্রান্তিকর কথা বলা হচ্ছে। আমরা মানুষের দুয়ারে যাচ্ছি। এনআরসির সমর্থনের প্রসঙ্গে জনসাধারণকে বোঝানো হচ্ছে। এদিন মালদায় অভিনন্দন যাত্রায় অংশ নিতে আসেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। দুপুর একটায় শুরু হবে বিজেপির বিশাল অভিনন্দন যাত্রা। বিজেপি'র জেলা পার্টি অফিস পুরাটুলি বাধরোড এলাকা থেকে বেরিয়ে মালদা শহর পরিক্রমা করবে দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে বিজেপির অভিনন্দন যাত্রা।