স্ত্রীর গোটা শরীরে কামড়ে মাংস খুবলে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে।

আক্রান্ত মহিলা
আক্রান্ত মহিলা
আজবাংলা মালদা : স্ত্রীর মোবাইল ফোনে কথা বলা এবং ফেসবুক করা নিয়ে সন্দেহ স্বামীর। আর তারই জেরে স্ত্রীর গোটা শরীরে কামড়ে মাংস খুবলে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। রবিবার সাতসকালে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে মালদা শহরের ঘোড়াপীর এলাকায়।‌ গুরুতর জখম ওই গৃহবধূকে স্থানীয় বাসিন্দারাই উদ্ধার করে নিয়ে যান মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে।আহত মহিলার মুখে ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় একাধিক কামড়ের আঘাত পড়েছে । এদিকে ওই গৃহবধূর ওপর হামলা চালানোর ঘটনা নিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন এলাকার মানুষ।  অভিযুক্ত স্বামী বাড়ি ছেড়ে পালাতে গেলে বাসিন্দারাই তাকে ধরে ইংরেজবাজার থানার পুলিশের হাতে তুলে দেন।
 পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,  আক্রান্ত মহিলার নাম কনক বারুই (২৪)।‌ অভিযুক্ত স্বামী অরুণ বারুই।তার মালদা টাউন স্টেশন এলাকায় একটি অস্থায়ী ফাস্টফুডের দোকান রয়েছে। বছর কয়েক আগে ওই দম্পতির বিয়ে হয় । তাদের একটি পুত্র সন্তানও রয়েছে । অভিযুক্ত অরুণ বারুই-এর সঙ্গে গত এক বছর ধরে কোন সম্পর্ক ছিল না গৃহবধূ কনক বারুই-এর।  দুর্গাপুজোর পর থেকেই নিজের স্ত্রীর কাছে ভুল স্বীকার করে পুনরায় থাকা শুরু করেন অরুণ বারুই । এরই মধ্যে ফের নতুন করে মোবাইল ফোনে কথা বলা ও ফেসবুক করা নিয়ে গোলমাল শুরু হয় ওই দম্পতির মধ্যে । রবিবার সকালে এই সন্দেহ গভীর আকার নেই।  তখনই নিজের স্ত্রীর গোটা শরীরে দাঁত দিয়ে কামড়ে মাংস খুবলে নেই অভিযুক্ত স্বামী অরুণ বারুই বলে অভিযোগ। পুলিশকে অভিযোগে আক্রান্ত মহিলা কনক বারুই জানিয়েছেন,  এক বছর আগে ঠিক এক রকম ভাবে আমাকে এবং আমার মায়ের উপর হামলা চালিয়েছিল স্বামী অরুণ বারুই । সেই সময় ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল । কিন্তু পুলিশ অফিসার ঘুষ নিয়ে অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেফতার করেনি। পরবর্তীতে নিজের ভুল স্বীকার করে আমাদের কাছেই থাকতে চাই স্বামী অরুণ বারুই । সব দোষ মাফ করে তাকে আবার কাছে টেনে নিয়ে ছিলাম । কিন্তু ও যে আমাকে মোবাইল ফোনে ফেসবুক করা নিয়ে বা কথা বলা নিয়ে সন্দেহ করবে তা ভাবতেই পারিনি। আক্রান্ত ওই মহিলার বক্তব্য,  রবিবার সকালে আমার মোবাইল ফোনে কথা বলা ও ফেসবুক করা নিয়ে বচসা হয় । সেই সময় ও অতর্কিতে আমাকে বিছানায় জাপটে ধরে শরীরের বিভিন্ন জায়গায়  দাঁত দিয়ে কামড়ে মাংস খুবলে তুলে নেওয়ার চেষ্টা চালায় । বিপুলভাবে আহত হই । যন্ত্রণায় চিৎকার শুরু করি । তখনই এলাকার লোকজন ছুটে আসে ।পুরো বিষয়টি নিয়ে ফের  ইংরেজবাজার থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ইংরেজবাজার পুলিশ সূত্রে খবর, পারিবারিক গোলমালের জেরে এক গৃহবধূ আক্রান্তের অভিযোগ দায়ের হয়েছে।অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি পুরো ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে ।