নেটফ্লিক্সের মাধ্যমে হিন্দুদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দিচ্ছে বলিউড।পুলিশের দ্বারস্থ শিবসেনা

নেটফ্লিক্সে
নেটফ্লিক্সে

আজবাংলা সিনেমাকেও হার মানিয়েছে নেটফ্লিক্স অ্যামাজন প্রাইমের মতো ওয়েব মিডিয়া।দর্শকের কাছে এখন সিনেমা বা ধারাবাহিকের থেকে বেশি প্রাধান্য পাচ্ছে ওয়েব সিরিজ। আর এই ওয়েব প্ল্যাটফর্মের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেটফ্লিক্স। কিন্তু সেই নেটফ্লিক্সের বিরুদ্ধেই উঠল অভিযোগ।অনেকেই দাবি তুলেছিলেন, নেটফ্লিক্সে দেখানো ওয়েব সিরিজের মাধ্যমে হিন্দুদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দিচ্ছে বলিউড। আর এই বিষয়টিকে উত্থাপন করেই এবার পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছে শিবসেনা।মুম্বইয়ের এল টি মার্গ থানায় রমেশ সোলাঙ্কি নামে এক শিব সেনার নেতা এই অভিযোগ জানিয়েছেন। ‘সেক্রেড গেমস’, ‘ল্যায়লা’, ‘ঘাউল’-এর মতো ওয়েব সিরিজগুলি নিয়ে তাঁর আপত্তি। এছাড়া স্ট্যান্ড-আপ কমেডিয়ান হাসান মিনাজের পারফর্ম্যান্সগুলি নিয়েও আপত্তি রয়েছে তাঁর। সোলাঙ্কির অভিযোগ, ভারত ও হিন্দুত্বকে বিশ্বের কাছে ভুলভাবে তুলে ধরছে নেটফ্লিক্স। অভিযোগ পত্রে তিনি লিখেছেন, “নেটফ্লিক্স ইন্ডিয়ার প্রায় সমস্ত ওয়েব সিরিজের উদ্দেশ্যই যেন বিশ্বের দরবারে এই দেশের নিন্দা করা।” তাঁর আরও অভিযোগ, নেটফ্লিক্স তাঁর সিরিজগুলির মাধ্যমে ‘হিন্দুফোবিয়া’ ঢুকিয়ে দিচ্ছে বিশ্ববাসীর মনে।মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এইঅনলাইন স্ট্রিমিং পরিষেবা তাদের প্ল্যাটফর্মে আয়োজিত সিরিজ ও শোয়ের মাধ্যমে “হিন্দুদের ও ভারতকে অপমান করছে।নেটফ্লিক্সের যে তিনটি সিরিজ নিয়ে অভিযোগ তুলেছেন সোলাঙ্কি, তার মধ্যে দু’টি গোড়া হিন্দুত্বের বিরুদ্ধাচরণ করেছে। রমেশ সোলাঙ্কি “হিন্দুদের ভাবাবেগে আঘাত হানার জন্য” নেটফ্লিক্সের বিরুদ্ধে “প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ” করার জন্য পুলিশকে অনুরোধ করেছেন। অভিযোগের একটি অনুলিপি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডনবিস এবং মুম্বইয়ের পুলিশ কমিশনারকেও পাঠানো হয়েছে বলে সূত্রের খবর।