জগন্নাথদেবই হলেন স্বয়ং নারায়ণ, তার কৃপায় প্রতি মুহূর্তেই জীবন সমৃদ্ধ হয়

জগন্নাথদেবই হলেন স্বয়ং নারায়ণ, তার কৃপায় প্রতি মুহূর্তেই জীবন সমৃদ্ধ হয়

আজবাংলা        বিপুল শক্তির অন্য নাম শ্রীশ্রী জগন্নাথদেব | জগন্নাথদেব হলেন  স্বয়ং নারায়ণ | জগন্নাথদেবের কৃপায় প্রতি মুহূর্তেই জীবন সমৃদ্ধ হয় | কোনও মানুষের জীবনে কোনও রকমের সমস্যা থাকবেনা যদি জগন্নাথদেবের কৃপা পাওয়া যায় | তিনিই অন্তর্যামী | বড় ধরনের বিপর্যয় থেকে মুক্তি আসে জগন্নাথদেব-বলভদ্র-সুভদ্রার আশীর্বাদে | জগন্নাথদেবের কৃপা জীবনে থাকলে সমস্ত দুঃখ দূর হয়ে যায় |

জগন্নাথদেব জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই নতুন সৃষ্টির স্বপ্ন দেখান  | তিনিই সর্ব শক্তিমান  | তাঁকে বিশ্বাস করলেই আসে মুক্তি | এমনকি তিনি স্বয়ং বিষ্ণুর এক রূপ বলেই মনে করা হয় |পুরীর জগন্নাথ মন্দির প্রতিটি ভক্তের কাছে এক আদর্শ স্থান | জগন্নাথ-বলভদ্র-সুভদ্রাকে রথের উপরে যিনি দেখেছেন তাঁর জীবন সার্থক হয়েছে | এমনই ভক্তবৃন্দরা মনে করে থাকেন | নিত্যদিন প্রভুর সেবার শত শত ভক্তরা নিজেদের নিয়োজিত রেখেছেন |

বছরের প্রতিটি সময়েই সারা দেশ এমনকী বিদেশ থেকেও জগন্নাথ দর্শনে বিপুল সংখ্যক ভক্ত সমাগম হয়ে থাকে | জগন্নাথদেবের আশীর্বাদে বিভিন্ন কাজ সুসম্পন্ন হয় | ভগবান জগন্নাথ সব সমস্যায় ভক্তের সব সমস্যার অবসান ঘটান | তাঁর আশীর্বাদে কেউই কোনও ভাবে অভুক্ত থাকেনা  |

মনে শান্তি ও প্রাণে বিশ্বাস যোগান স্বয়ং প্রভুই | জগন্নাথদেবের কৃপায় সমাজ সংসার বেশ হাসিতে, খুশিতে ও আনন্দে ভরপুর থাকে | হিন্দুশাস্ত্র মতে রথের উপরে যিনি একবার জগন্নাথদেবকে দর্শন করেছেন তাঁর জীবন পরিপূর্ণ হয়েছে | জীবনের নানা ধরনের সমস্যা ৷ সে ছোট বড় হোক বা মাঝারি  | জগন্নাথ-বলভত্র-সুভদ্রার আশীর্বাদে জীবন হয় অত্যন্ত সুন্দর |