Jalpaiguri| হাসপাতালে উপচে পড়ছে ভিড়| জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা?

Jalpaiguri| হাসপাতালে উপচে পড়ছে ভিড়|  জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা?

ব্যাপক ছাড়ে  Amazon-এ শপিং করতে এই খানে ক্লিক করুন

কোন অসুখের কারণে জলপাইগুড়িতে জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা? কারও গায়ে জ্বর তো কারও পেট খারাপ। কেউ আবার ঘন ঘন বমিও করছে।একরত্তিদের দলে দলে হাসপাতালে ভর্তি করতে হচ্ছে। জেলা সদর হাসপাতালে শিশুদের ভিড় জমে গিয়েছে। ডেঙ্গি না ম্যালেরিয়া না কি করোনা, জ্বরের আসল কারণ নিয়ে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে বাবা-মায়েদের মধ্যে। জলপাইগুড়ি জেলা সদর হাসপাতালের শিশু বিভাগে এই মুহূর্তে চিকিত্‍সাধীন ১৩০ জন শিশু। গতকাল সংখ্যাটা ছিলো ১২১।পাশাপাশি হাসপাতালের আউটডোর বিভাগেও উপচে পড়ছে অসুস্থ শিশুর ভিড়। কেন আচমকা শিশুদের এই জ্বর হচ্ছে, তা নিয়ে সংশয়ে রয়েছেন চিকিত্‍সকরা। 

তবে হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত সুপার জানিয়েছেন, বাচ্চাদের তেমন কারও ডেঙ্গি ম্যালেরিয়া বা করোনা ধরা পড়েনি। ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস থেকে এমনটা হতে পারে বলে মনে করছেন তিনি। সূত্রের খবর, এক শিশুর দেহে মিলেছে ডেঙ্গির জীবানুও। তবে সেকথা স্বাস্থ্য দফতর স্বীকার করেনি। এদিন জেলাশাসক জলপাইগুড়ি জেলা সদর হাসপাতালে গিয়ে সার্বিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছেন। কথা বলেছেন অসুস্থ শিশুদের মায়েদের সঙ্গে। ওই হাসপাতালে আরও বেডের সংখ্যা বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শিশু ওয়ার্ডে আরও ৪০টি বেড বাড়ানো হচ্ছে। জলপাইগুড়ি জেলা সদর হাসপাতালে পিকু বা পেডিয়াট্রিক কেয়ার ইউনিট পেডিয়াট্রিক কেয়ার ইউনিটের ব্যবস্থা নেই। জ্বর নিয়ে সেখানে ভর্তি হওয়া তিন শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁদের স্থানান্তরিত করতে হয়েছে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। শিশুদের মধ্যে হঠাত্‍ জ্বরের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় এদিন উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে থেকে জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে আসে ৫ সদস্যের এক প্রতিনিধি দল।

বিশেষজ্ঞ টিমের সদস্য ডাক্তার শান্তনু হাজরা জানিয়েছেন, 'আমরা শিশুদের দেখলাম। তাদের বাড়ির আশেপাশে তথ্য থেকে জানতে পারলাম সেখানেও ধূম জ্বর বা অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার মতো ঘটনা আছে। আমাদের প্রাথমিক ধারনা জাপানি এনকেফেলাইটিস সংক্রমণ হতে পারে। নিশ্চিত হতে যাবতীয় নমুনা কলকাতায় পাঠাবার কথা বলা হয়েছে। পাশাপাশি ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিকদের এলাকার পরিস্থিতি ক্ষতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে।'

ঘটনায় মেডিক্যাল টিমের সদস্য ডাক্তার গৌতম দাস জানিয়েছেন, 'প্রাথমিক ধারনা আবহাওয়া তারতম্যর জন্য ইনফ্লুয়েঞ্জা হতে পারে। তবে গত কয়েকবছর আগে এই সময় জলপাইগুড়িতে ব্যাপক ভাবে এনকেফেলাইটিস সংক্রমণ হয়েছিল। তবে এবার এনকেফেলাইটিস নাকি স্ক্রাব টাইফাস, চিকুনগুনিয়া, ডেঙ্গি কিংবা অন্য কোনোও সংক্রমণ তার সঠিক কারণ জানতে শিশুদের রক্ত ও নেজাল সোয়াব পরীক্ষার জন্য নমুনা কলকাতায় পাঠাবার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।' 

ব্যাপক ছাড়ে  Amazon-এ শপিং করতে এই খানে ক্লিক করুন